বিশাখাপত্তনমে প্রথম টেস্ট দাপটে জিতে সিরিজে ১-০ এগিয়ে আছে ভারত। কোহালির দ্বিশতরানের অনবদ্য ইনিংস পুণে টেস্টেও চালকের আসনে বসিয়ে দিল টিম ইন্ডিয়াকে। দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শেষে ৩৬ রানে তিন উইকেট হারিয়ে রীতিমতো ধুঁকছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ফিরে গিয়েছেন মারক্রাম (০), এলগার (৬) ও বাভুমা (৮)। প্রথম দুই উইকেট নিয়েছেন উমেশ যাদব। বাভুমাকে ফিরিয়েছেন মহম্মদ শামি। এখনও ৫৬৫ রানে পিছিয়ে প্রোটিয়ারা। ক্রিজে আছেন ডি’ব্রুইন (২০) ও নর্টজে (২)। 

বিশাখাপত্তম টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন ময়াঙ্ক আগরওয়াল। শুক্রবার পুণে টেস্টের দ্বিতীয় দিনে চায়ের বিরতির পর দ্বিশতরান করলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালি। তাঁর অপরাজিত ২৫৪ রানের সুবাদে পাঁচ উইকেটে ৬০১ তুলে ইনিংসের সমাপ্তি ঘোষণা করল টিম ইন্ডিয়া। এটাই বিরাটের টেস্ট কেরিয়ারের সর্বাধিক রান। তাঁর ৩৩৬ বলের ইনিংসে ছিল ৩৩টি চার ও দুটো ছয়।

কোহালির কেরিয়ারের সপ্তম ডাবল সেঞ্চুরি এসেছিল ২৯৫ বলে, ২৮ চারের সাহায্যে। ভারতীয় ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি দ্বিশতরানের মালিক হলেন তিনি।এই ইনিংসেই স্যার ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যানের ৬৯৯৬ রানকে টপকে গেলেন কোহালি। টেস্টে সাত হাজার রানেও পৌঁছে গেলেন একইসঙ্গে। এদিন টেস্ট কেরিয়ারের ২৬তম শতরানে পৌঁছতে ১৭৩ বল নিয়েছিলেন কোহালি। চলতি বছরে যা ছিল তাঁর প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি। সেখানেই না থেমে আরও বড় ইনিংসের লক্ষ্যে এগিয়ে গেলেন তিনি। বাড়ালেন রান তোলার গতিও। 

আরও পড়ুন: সাফল্যের কারণ ইডলি-ডায়েট, ফাঁস করলেন ময়াঙ্ক​

আরও পড়ুন: রবি শাস্ত্রী, জাস্টিন ল্যাঙ্গার থেকে লালচাঁদ রাজপুত, ক্রিকেট কোচেদের বেতন চোখ কপালে তুলবে​

এদিন সকালে দিনের প্রথম সেশনে কোনও উইকেট হারায়নি ভারত। মধ্যাহ্নভোজের বিরতির পর ৫৯ রানে ফেরেন অজিঙ্ক রাহানে। তার আগে চতুর্থ উইকেটের জুটিতে ১৭৮ রান যোগ করে কোহালি-রাহানে জুটি। চায়ের বিরতির সময় চার উইকেটে ৪৭৩ রান উঠে গিয়েছিল স্কোরবোর্ডে। কোহালি খেলছিলেন ১৯৪ রানে। সঙ্গে ছিলেন রবীন্দ্র জাডেজা (২৫)। পঞ্চম উইকেটের জুটিতে জাডেজার সঙ্গে শেষ পর্যন্ত ২২৫ রান যোগ করলেন কোহালি। জাডেজা ছয় মারতে গিয়ে আউট হলেন ৯১ রানে। তাঁর ১০৪ বলের ইনিংসে ছিল আটটি চার ও দুটো ছয়। জাডেজা ফিরতেই ইনিংসের সমাপ্তি ঘোষণা করেন কোহালি।

শুক্রবার তিন উইকেটে ২৭৩ নিয়ে শুরু করেছিল ভারত। দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান বিরাট কোহালি (৬৩) ও অজিঙ্ক রাহানে (১৮) শুরু করেছিলেন সতর্ক ভাবে। প্রোটিয়া পেসাররা দ্বিতীয় নতুন বলে উজাড় করে দিলেও ভাগ্যের সাহায্য পাননি। ফিলান্ডারের বলে কোহালির খোঁচা একবার উইকেটকিপারের বাড়ানো হাতের নাগাল এড়িয়ে যায়। রাহানের খোঁচাও একবার ফিল্ডারের সামনে পড়ে। ৮৬ রানে থাকার সময়ও কোহালির ব্যাট ছুঁয়ে দ্বিতীয় স্লিপের পাশ দিয়ে বেরিয়ে যায় বল। তার আগে কেশব মহারাজের দিনের প্রথম বলে রাহানের বিরুদ্ধে এলবিডব্লিউয়ের আবেদন ওঠে। ডিআরএস নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু বল লেগস্টাম্প লাইনের বাইরে পড়ায় বেঁচে যান রাহানে।

১৯৮ রানে তৃতীয় উইকেট পড়েছিল ভারতের। ১০৮ করে ফিরেছিলেন ময়াঙ্ক আগরওয়াল। অবিচ্ছিন্ন চতুর্থ উইকেটে কোহালি-রাহানে দেড়শোর বেশি রান যোগ করে ফেলেছেন। কোহালি আবার অন্য এক কীর্তিও করে ফেললেন এ দিন। টেস্টে মোট রানে টপকে গেলেন দিলীপ বেঙ্গসরকরকে (৬৮৬৮ রান)। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মোট রানে তিনি এখন সপ্তম। সচিন তেন্ডুলকর (১৫,৯২১), রাহুল দ্রাবিড় (১৩,২৬৫), সুনীল গাওস্কর (১০,১২২), ভিভিএস লক্ষ্মণ (৮৭৮১), বীরেন্দ্র সহবাগ (৮৫০৩), সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের (৭২১২) পরই কোহালি।