মরসুম শেষের এটিপি ফাইনালসে বিশ্বের সাত নম্বর আলেকজান্ডার জেরেভের কাছে হারের পরে সাংবাদিক বৈঠকে মেজাজ হারালেন রাফায়েল নাদাল। 

জার্মান তারকা জেরেভ লন্ডনে চলা এই প্রতিযোগিতায় স্ট্রেট গেমে উড়িয়ে দেন নাদালকে। ফল ২-৬, ৪-৬। বিশ্বের এক নম্বর কোনও প্রতিরোধই গড়তে পারেননি জেরেভের বিরুদ্ধে। বিশেষ করে, প্রথম গেমে। ম্যাচের পরে সাংবাদিক বৈঠকে নাদালকে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, ‘‘যদিও আপনি দীর্ঘদিনের বান্ধবীকে বিয়ে করেছেন। তবুও জানতে চাই, বিয়ের পরে আপনার মনঃসংযোগে কোনও রকম ব্যাঘাত ঘটেছে কি না?’’

গত মাসে নাদাল দীর্ঘদিনের বান্ধবী সিসকা পিরেলোকে বিয়ে করেন। বিয়ের পরেই তাঁর পারফরম্যান্সে প্রভাব পড়েছে ইঙ্গিত করায় ক্রুদ্ধ নাদাল বলে ওঠেন, ‘‘আপনি কি সত্যিই আমাকে এই প্রশ্নটা করলেন? এটা সত্যিই প্রশ্ন না মজা করছেন?’’ বলার পরেই  নাদাল দ্রুত যোগ করেন, ‘‘খুব আবাক হয়ে যাচ্ছি এ রকম প্রশ্ন শুনে। গত ১৫ বছর ও আমার বান্ধবী ছিল। আমার জীবনেও সে রকম কোনও সমস্যা নেই। এত বছর ধরে স্বাভাবিক জীবন কাটিয়ে আসছি। হাতে একটা আংটি (বিয়ের) পরলাম কি না, সেটা কোনও ব্যাপার নয়। ব্যক্তিগত ভাবে আমি খুব সাধারণ এক জন মানুষ।’’ এখানেই থামেননি বিশ্বের এক নম্বর। নাদাল আরও বলে দেন, ‘‘নিজের লড়াকু মানসিকতা নিয়ে আমি হতাশ। কারণ, ম্যাচটায় যে ভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হত, সেটা আমি পারিনি। এই ব্যাপারে কোনও অজুহাত দেওয়া চলে না। প্রতিপক্ষ অনেক ভাল খেলেছে আমার চেয়ে।’’ 

তবে এই হারের মধ্যেও একটা ইতিবাচক দিক খুঁজে পেয়েছেন স্পেনীয় তারকা। চলতি মাসেই গোড়ার দিকে প্যারিস মাস্টার্সের সেমিফাইনাল থেকে নাম তুলে নিয়েছিলেন নাদাল পেটে চোটের জন্য। এটিপি ফাইনালসের প্রথম ম্যাচে নেমে অবশ্য চোটের জায়গায় কোনও ব্যথা টের পাননি তিনি। ‘‘শারীরিক অবস্থা নিয়ে অভিযোগ করার কিছু নেই। পেটে কোনও ব্যথা টের পাচ্ছি না। এটাই একমাত্র ইতিবাচক ব্যাপার। আশা করি এ ভাবেই খেলে যেতে পারব। এটা ঠিক যে, গত শনিবার চোট লাগার পর থেকে আমি খুব একটা অনুশীলন করতে পারিনি। তবে শারীরিক সমস্যা নিয়ে কোনও অজুহাত দেব না। একটাই কথা, আমি আজ ভাল খেলতে পারিনি।’’

 নাদালের প্রতিপক্ষ জেরেভ এই প্রতিযোগিতায় গত বারের চ্যাম্পিয়ন। নোভাক জোকোভিচের (২০১৪-’১৫) পরে দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে টানা দু’বার এটিপি ফাইনালস জয়ের নজির গড়ার দৌড়ে আছেন জার্মান তারকা। দেখার চলতি মরসুমে ছন্দে থাকা আর এক তারকা রাশিয়ার দানিল মেদভেদেভের বিরুদ্ধে বুধবার নাদাল ঘুরে দাঁড়াতে পারেন কি না। একই প্রতিযোগিতায় প্রথম ম্যাচে হারার পরে দ্বিতীয় ম্যাচে জিতে খেতাব জয়ের আশা ধরে রাখলেন রজার ফেডেরার। মঙ্গলবার ফেডেরার ৭-৬ (৭-২), ৬-৩ হারান মাতেও বারেত্তিনিকে।