কল্যাণীতে সোমবার ইস্টবেঙ্গল ড্র করার সঙ্গেই তীব্র হল কলকাতা লিগ খেতাবের লড়াই। যা পরিস্থিতি, তাতে বৃহস্পতিবার যুবভারতী এবং বারাসতে দুটি ম্যাচের ফল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ক্ষেত্রে। বারো দলের লিগে ছয়টি দল এখনও খেতাবের দাবিদার। 

যুবভারতীতে ১৯ সেপ্টেম্বর মোহনবাগানের সামনে মহমেডান। বারাসতে মুখোমুখি খেতাবি লড়াইয়ে থাকা দুই দল পিয়ারলেস এবং ভবানীপুর। লিগ টেবলের যা অবস্থা তাতে পিয়ারলেস, মোহনবাগান, ভবানীপুর এবং ইস্টবেঙ্গল পয়েন্টের বিচারে একই বিন্দুতে দাঁড়িয়ে। প্রত্যেকের পয়েন্ট ১৪। তবে চার দলের মধ্যে সুবিধাজনক অবস্থায় আছে আনসুমানা ক্রোমাদের দলই। শুধু গোল পার্থক্যে শীর্ষে থাকাই নয়, অন্য দলগুলি যেখানে আটটি করে ম্যাচ খেলেছে, সেখানে এখনও পর্যন্ত পিয়ারলেস খেলেছে সাতটি ম্যাচ।   

সূচি অনুযায়ী দেখা যাচ্ছে চ্যাম্পিয়নের লড়াইতে অণুঘটকের কাজ করতে পারে মহমেডান এবং জর্জ টেলিগ্রাফ। দীপেন্দু বিশ্বাসের দলের সঙ্গে ম্যাচ বাকি রয়েছে পিয়ারলেস, ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগানের। এই তিন দলই খেতাবের লড়াইতে আছে। অন্যদিকে জর্জের সঙ্গে ম্যাচ বাকি পিয়ারলেস ও ভবানীপুরের। মহমেডানের পয়েন্ট ৮ ম্যাচে ১৩। একই পয়েন্ট জর্জেরও।  

তবে মোহনবাগানের কাছে বৃহস্পতিবারের ম্যাচটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ মহমেডান ছাড়া তাদের ম্যাচ বাকি রয়েছে সাদার্ন সমিতি এবং কালীঘাট এমএসের। এ দিন রবিবারের ম্যাচে খেলা প্রথম একাদশকে বিশ্রাম দিয়েছিলেন মোহনবাগানের স্পেনীয় কোচ। লিগের সাপ-লুডোর অঙ্ক জানার জন্য সূচির দিকে রাখতে হবে। সেখানে জহর দাসের পিয়ারলেসের ম্যাচ বাকি রয়েছে ভবানীপুর, রেনবো, মহমেডান ও জর্জের সঙ্গে। ইস্টবেঙ্গলের খেলা বাকি মহমেডান ছাড়াও কাস্টমস এবং রেনবোর সঙ্গে। ভবানীপুরকে খেলতে হবে জর্জ, এরিয়ান ও পিয়ারলেসের সঙ্গে। সোজা অঙ্ক হল, বাকি চার ম্যাচের তিনটিতে জয় এবং একটি ড্র করলেই চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাবে পিয়ারলেস।