• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘এখনকার দলে সিনিয়রদের প্রতি শ্রদ্ধা কমেছে’, রোহিতের প্রশ্নের উত্তরে আক্রমণাত্মক যুবরাজ

Yuvraj, Rohit
নিজের সময়ের চেয়ে এখনকার সময়ের ক্রিকেটারদের মধ্যে তফাত কোথায়, রোহিতের সঙ্গে আলোচনায় যুবরাজ।

এখনকার ভারতীয় দলে সিনিয়রদের প্রতি জুনিয়র ক্রিকেটারদের শ্রদ্ধা কম বলে মনে করছেন যুবরাজ সিংহ। ইনস্টাগ্রামে লাইভ প্রশ্নোত্তর পর্বে ভারতের এক দিনের দলের সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে এমনই বলেছেন তিনি।

রোহিত জিজ্ঞাসা করেছিলেন যে, যুবির সময়ের জাতীয় দল ও এখনকার জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে তফাত কী। জবাবে নিজের সময়ের জাতীয় দল নিয়ে বাঁ-হাতি মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান বলেন, “যখন আমি জাতীয় দলে এসেছিলাম বা যখন তুমি এসেছিলে তখন আমাদের সিনিয়ররা খুব শৃঙ্খলাপরায়ণ ছিল। অবশ্য সোশ্যাল মিডিয়া ছিল না বলে অন্য দিকে মন যাওয়ার প্রশ্ন ছিল না। কিছু নির্দিষ্ট আচরণ আমাদেরও করতে হত। তারা যে ভাবে মানুষের সঙ্গে কথা বলত, যে ভাবে মিডিয়ার মুখোমুখি হত তা থেকে শিখতাম আমরা। কারণ, তারা খেলাটার ও ভারতের অ্যামবাসাডর ছিল।”

এখন জাতীয় দলে সেই পরিস্থিতি নেই বলে মনে করছেন যুবরাজ। তাঁর কথায়, “তোমাদেরও এটা আমি বলেছিলাম। দেশের হয়ে খেলে ফেলার পর নিজের ইমেজ নিয়ে আরও সচেতন থাকতে হবে। কিন্তু, এখনকার প্রজন্ম তা নয়। এখন তো দলে শুধু বিরাট আর তুমিই সিনিয়র। যাঁরা তিন ফরম্যাটেই খেলে। বাকিরা তো দলে আসা-যাওয়া করে। আমার মনে হয়, এখন দলে খুব কম জনই আছে যাঁরা ভাবমূর্তি নিয়ে সচেতন। সিনিয়রদের প্রতি শ্রদ্ধাও অনেক কমেছে বলে মনে হচ্ছে। এখন যে কেউ যা খুশি বলে দিতে পারে যে কাউকে।”

আরও পড়ুন: বিরাট-স্লেজিং বন্ধ আইপিএল মোহেই: ক্লার্ক

আরও পড়ুন: ভিভের প্রতিদ্বন্দ্বী বিরাট, বলছেন ওয়ার্ন​

তাঁর সময়ে ক্রিকেটাররা সবাই নিজেদের কার্যকলাপ নিয়ে সচেতন থাকতেন বলে জানিয়েছেন যুবরাজ। তাঁর কথায়, “এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় পার্টির ছবি দেয় জুনিয়ররা। এগুলো আমাদের সময়ে ভাবাই যেত না। আমরা ভয় পেতাম যে, যদি কোনও ভুল করে বসি তা হলে সিনিয়ররা বকবে। বলবে যে, এটা করা উচিত নয়, এগুলো আর করো না।” হার্দিক পাণ্ড্য ও লোকেশ রাহুলের ‘টক শো’-তে মহিলাদের সম্পর্কে করা মন্তব্য ঝড় তুলেছিল। যুবি সেই ঘটনা নিয়ে বলেছেন, “আমাদের সময়ে এমন ঘটনা ঘটতেই পারত না।”

দলের আবহাওয়া নিয়ে রোহিত শর্মা বলেছেন, “আমি যখন দলে এসেছিলাম, তখন অনেক সিনিয়র ছিল। পীযূষ চাওলা ও সুরেশ রায়নার সঙ্গে আমিও ছিলাম তরুণ। এখন দলের আবহাওয়া অনেক হাল্কা। আমি তো পাঁচ-ছয় জন তরুণের সঙ্গে কথা বলি নিয়মিত। তার মধ্যে ঋষভ পন্থের সঙ্গে প্রচুর কথা হয়। ওঁর উপর প্রচুর স্ত্রুটিনি চলে। ওঁকে নিয়ে লেখার আগে মিডিয়ারও ভাবা উচিত। তবে দেশের হয়ে খেললে মিডিয়ার নজরও থাকবে।”

দলের তরুণ প্রজন্মের মানসিকতা নিয়ে যুবরাজ বলেছেন, “সচিন এক বার আমাকে বলেছিলেন যে, মাঠে পারফর্ম করতে পারলে সবকিছুই অনুসরণ করবে তোমাকে। আমি একসময় জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমিতে ছিলাম। সেখানে তরুণদের সঙ্গে অনেক কথা হত। আমার মনে হত, ওদের অধিকাংশই টেস্ট ক্রিকেট খেলতে চায় না। কিন্তু, টেস্ট ক্রিকেটই তো আসল ক্রিকেট। ওঁরা কিন্তু ওয়ানডে খেলতেই বেশি ভালবাসে। যাঁরা দেশের হয়ে খেলেছে, তাঁদের উচিত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট না থাকলে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলা। এতে দেশ জুড়ে বিভিন্ন ধরনের পিচে খেলার মূল্যবান অভিজ্ঞতা হবে।”

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন