ভারতীয় ‘এ’ দল এবং ঘরোয়া ক্রিকেটে ভাল খেলার পুরস্কার পেলেন শুভমন গিল এবং বিজয় শঙ্কর। চলতি অস্ট্রেলীয় সফরে হার্দিক পাণ্ড্য এবং কে এল রাহুলের বদলে ভারতীয় দলে সুযোগ পেলেন তাঁরা।

একটি টেলিভিশন শোয়ে মেয়েদের বিরুদ্ধে আপত্তিকর মন্তব্য করায় হার্দিক এবং রাহুল অনির্দিষ্টকালের জন্য সাসপেন্ড হয়েছেন। সিডনি থেকেই তাঁদের দেশে ফেরার বিমান ধরতে হচ্ছে। পরিবর্ত হিসাবে শনিবার রাতেই শুভমন এবং বিজয়ের নাম ঘোষণা করে ভারতীয় বোর্ড।

কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স (সিওএ) জানিয়েছে, হার্দিকের বদলে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডে যাবেন অলরাউন্ডার বিজয়। ১৫ জানুয়ারি অ্যাডিলেডে ভারত-অস্ট্রেলিয়া ওয়ান ডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ। তার আগেইভারতীয় দলে যোগ দেবেন বিজয়। শুভমনকে অবশ্য আর একটু অপেক্ষা করতে হবে। অস্ট্রেলীয় সফরের পর নিউজিল্যান্ডে বিরাট কোহালির সফর শুরু ২৩ জানুয়ারি। সেখানে ৫টি ওয়ান ডে এবং ৩টি টি-টোয়েন্টি খেলবে ভারতীয় দল। ওই দলের সঙ্গে থাকছেন শুভমন।

(আজকের তারিখে গুরুত্বপূর্ণ কী কী ঘটেছিল অতীতে, তারই কয়েক ঝলক দেখতে ক্লিক করুন— ফিরে দেখা এই দিন।)

আরও পড়ুন: ‘হার্দিক-রাহুলের এই ধরনের মন্তব্য সমর্থন করে না ভারতীয় দল’

আরও পড়ুন: ওপেনারের সেঞ্চুরি সত্ত্বেও হার ভারতের, ধোনিকে চারে চান রোহিত

এই মুহূর্তে ঘরোয়া ক্রিকেটে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন ১৯ বছরের শুভমন। পঞ্জাবের হয়ে সম্প্রতি রঞ্জি ট্রফিতে ৭৯০ রান করেছেন। ৯৮.৭৫ ব্যাটিং গড়ের পাশাপাশি ২টি সেঞ্চুরি ও ৫টি হাফ সেঞ্চুরিও বেরিয়েছে তাঁর ব্যাট থেকে। ভারতীয় সিনিয়র দলে না খেললেও ইন্ডিয়া ‘এ’ দলের হয়ে নিউজিল্যান্ড সফরও করে ফেলেছেন তিনি। গত বছরের আইসিসি যুব বিশ্বকাপের সদস্য শুভমন বরাবরই নির্বাচকদের নজরে রয়েছেন। যুব বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটার শুভমনকে গত আইপিএলে ১.৮ কোটি টাকায় কিনে নেয় কলকাতা নাইট রাইডার্স। নাইটদের হয়ে তাঁর অপরাজিত ৫৭ রানের পর আদায় করে নিয়ে দলের ক্যাপ্টেন দীনেশ কার্তিকের প্রশংসাও। সিএসকে-র বিরুদ্ধে শুভমনের ওই ম্যাচ জেতানো ইনিংস দেখে কার্তিক খোলাখুলিই বলেছেন, “এই ছেলেটি সত্যিই স্পেশাল।” সে সময়ই কার্তিকের ভবিষ্যদ্বাণী ছিল, “ভারতীয় দলের জার্সিতে বহু বছর খেলবে শুভমন।”

আরও পড়ুন: বিরাটের উইকেট ভুলবেন না নায়ক রিচার্ডসন

শুভমনের মতো অবশ্য ভারতীয় দলে আনকোরা নন বিজয়। ইতিমধ্যেই টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয়ে গিয়েছে তামিলনাড়ুর এই অলরাউন্ডারের। গত বছরের মার্চে নিদাহাস ট্রফিতে খেলেছিলেন। নভেম্বরে ইন্ডিয়া ‘এ’ দলের হয়ে নিউজিল্যান্ডে গিয়েছেন। ফলে হার্দিকের পরিবর্ত হিসাবে তাঁর নামটা সহজেই উঠে এসেছিল। সে বারফিনিশার হিসাবে তাঁর গড় ছিল ৯৪। তিন ম্যাচে ভারতীয়দের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১৮৮ রান করেছিলেন বিজয়।

(ক্রিকেটের খবর,ফুটবলের খবর, টেনিসের খবর, হকির খবর - খেলার খবরেরসেরা ঠিকানা আমাদের খেলা বিভাগ।)