• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিরাট-স্লেজিং বন্ধ আইপিএল মোহেই: ক্লার্ক

Sledging
সংঘাত: যুযুধান বিরাট-পেন। গত অস্ট্রেলিয়া সফরে পার্‌থে। ফাইল চিত্র। (ইনসেটে ক্লার্ক)

আইপিএলে মোটা অঙ্কের চুক্তি পাওয়ার আকর্ষণে বিরাট কোহালি এবং তাঁর দলের ক্রিকেটারদের ‘স্লেজ’ করতে ভয় পেতেন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা। বিস্ফোরক এই মন্তব্য করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক।

ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে অনেক স্মরণীয় লড়াই বাইশ গজে দেখা গিয়েছে। যেখানে একটা সময় উগ্র স্লেজিং নজরে পড়লেও ইদানীং তা সে রকম দেখা যায়নি। ক্লার্ক মনে করেন, দু’দল মুখোমুখি হলেই অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারদের চোখের সামনে ভেসে ওঠে এপ্রিল-মে মাসের আইপিএল। মঙ্গলবার নিজের দেশের এক রেডিয়ো অনুষ্ঠানে অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বজয়ী অধিনায়ক ক্লার্ক বলেছেন, ‘‘খেলাটার আর্থিক দিক দেখলে ভারত কতটা শক্তিশালী, সেটা সবাই জানে। সেটা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের প্রেক্ষাপটেই হোক বা আইপিএলের কারণে ভারতের ঘরোয়া  ক্রিকেটের জন্যই হোক।’’   

এর পরেই ক্লার্ক বলেন, ‘‘আমার মনে হয়েছে, অস্ট্রেলিয়া এবং আরও কয়েকটা দলের ক্রিকেটাররা কিছুটা সময়ের জন্য কোহালি এবং ওর দলের ছেলেদের স্লেজ করতে ভয় পেত। ওরা জানত এপ্রিলে (আইপিএলে) ভারতীয় ক্রিকেটারদের সঙ্গে খেলতে হবে। ভারতের ঘরোয়া লিগের আকর্ষণ ওরা এড়াতে পারত না।’’ 

আরও পড়ুন: শারীরিক দূরত্ব নিয়ে বার্তা দিলেন যুবি

যদিও ক্লার্কের পাল্টা মতও ঘুরছে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে বল বিকৃতি কেলেঙ্কারিতে বিদ্ধ অস্ট্রেলিয়া নিজেরাই ভাবমূর্তি ফেরাতে স্লেজিং বন্ধ করার সংস্কৃতি আনতে চেয়েছিল। তবে সেই মনোভাবও বেশি দিন ধরে  রাখতে পারেনি অস্ট্রেলিয়া। ভারতের শেষ অস্ট্রেলিয়া সফরে কোহালির সঙ্গে অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক টিম পেনের বাগ্‌যুদ্ধ বেশ কয়েক বার শিরোনামে এসেছিল। এমনকি, পেনের সঙ্গে ঋষভ পন্থের স্লেজিংও ক্রিকেট বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছিল। ক্লার্কের যদিও মনে হচ্ছে, অতীতে ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া সিরিজে স্লেজিং বিতর্ক অনেক সময়েই চরমে উঠছে। পরবর্তী কালে ছবিটা বদলে যেতে থাকে। যার কারণ হিসেবে আইপিএলের দিকেই অবশ্য আঙুল তুলেছেন তিনি। বলছেন, ‘‘দশ জন ক্রিকেটারের নামের তালিকা তৈরি করুন। নিলামে যে সব অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারের জন্য লড়াই করে আইপিএলের দলগুলো। ক্রিকেটারদের মনোভাব অনেকটা এ রকম হয় যে, কোহালিকে স্লেজ করব না। আমি চাই, আরসিবির জন্য কোহালি আমাকে বাছুক, যাতে ছ’সপ্তাহের মধ্যে আমি ১০ লাখ মার্কিন ডলার কামিয়ে নিতে পারি। আমার মনে হয় সেই কারণেই ক্রিকেটারদের মানসিকতা বদলে দিয়েছে। ওরা এখন অনেক নরমসরম হয়ে গিয়েছে।’’ 

তবে ক্লার্ক এটাও স্বীকার করেছেন, কোহালিকে স্লেজ না করার পিছনে ক্রিকেটীয় কারণও আছে। অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক বলেছেন, ‘‘আমি অন্তত মনে করি, ব্যাট করার সময় কোহালিকে স্লেজ না করাই ভাল। এবং আশা করা যে, শুরুর দিকে ওর মনঃসংযোগে ঘাটতি থাকবে এবং আউট হওয়ার সুযোগ দেবে। এই ধারণাটা অনেকে বিশ্বাস করে। কেউ, কেউ আবার এমনও মনে করে, শুরুর দিকে কোহালির মনঃসংযোগ নষ্ট করলে ও বিরক্ত হয়ে বা মেজাজ হারিয়ে বড় শট খেলার চেষ্টা করবে। আর তখন ওর উইকেট তোলার সুযোগ পাওয়া যাবে।’’

আইপিএল নিয়ে ক্লার্কের যা ধারণা, তার উল্টো বক্তব্য ভারত অধিনায়ক কোহালির। ক্লার্ক যেখানে বলছেন, আইপিএল অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারদের নরম করে দিয়েছে, কোহালি তখন পারস্পরিক শ্রদ্ধার কথা তুলে এনেছেন। দিন কয়েক আগে কেভিন পিটারসেনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কোহালি পরিষ্কার করে দিয়েছেন ব্যাপারটা। স্লেজিং নিয়ে কোহালিকে প্রশ্ন করেছিলেন কেপি।   উত্তরে কোহালি বলেছিলেন, ‘‘আইপিএল পরস্পরকে শ্রদ্ধা করাটা শিখিয়েছে। যেমন আমি কখনও এবি ডিভিলিয়ার্সকে স্লেজ করতে পারব না। বন্ধুত্বটা এ সবের চেয়ে অনেক বড় ব্যাপার।’’ এখন দেখার, ক্লার্কের এই মন্তব্যের পর তাঁর দেশের বর্তমান ক্রিকেটারদের মধ্যে কী প্রতিক্রিয়া হয়। কোহালি বা ভারতীয় ক্রিকেটারেরাই বা কী ভাবে এই মন্তব্যকে নেন।   

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন