Advertisement
২০ এপ্রিল ২০২৪
Fan Violence

ফুটবল ম্যাচের আগেই সমর্থকদের সংঘর্ষ! গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু এক যুবকের

লিগের শীর্ষে ওঠার লড়াইয়ে খেলতে নামছিল দু’টি দল। আগে থেকেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত ছিল। খেলা শুরু হওয়ার আগে মাঠের বাইরে সংঘর্ষে জড়ান দু’দলের সমর্থকরা। সেখানেই মৃত্যু হয় এক সমর্থকের।

আর্জেন্টিনায় ফুটবল ম্য়াচ চলাকালীন গ্যালারিতে উত্তেজনা।

আর্জেন্টিনায় ফুটবল ম্য়াচ চলাকালীন গ্যালারিতে উত্তেজনা। —ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৬:১৩
Share: Save:

ফুটবল ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে দু’পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে উত্তেজনা ছড়াল মাঠের বাইরে। গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৩৬ বছরের এক যুবকের।

সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে আর্জেন্টিনায়। ক্লাব অ্যাটলেটিকো ডে সান মার্টিন ও বেলগ্রানো নামের দু’টি ফুটবল ক্লাবের মধ্যে দ্বিতীয় ডিভিশনের খেলা ছিল। দু’টি দলই লিগের শীর্ষে ওঠার লড়াইয়ে ছিল। তাই খেলা শুরুর আগে থেকেই উত্তেজনা ছিল সমর্থকদের মধ্যে। মাঠের বাইরে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন দু’দলের সমর্থকরা। সেই সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে লুটিয়ে পড়েন সান মার্টিনের এক সমর্থক। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

মাঠের বাইরে সংঘর্ষের পরে শুরু হয় খেলা। ১-০ গোলে বেলগ্রানোকে হারায় সান মার্টিন।

সংঘর্ষ নিয়ে ক্ষোভপ্রকাশ করেছে সান মার্টিন। ক্লাবের সভাপতি রুবেন মইসেল্লো জানিয়েছেন, তাঁদের ক্লাবের ওই সমর্থকের গলায় গুলি লেগেছে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। সেখানকার এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, আততায়ীকে চিহ্নিত করা গিয়েছে। তাঁর খোঁজ শুরু করেছে পুলিশ।

সোমবার রাতে আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় ডিভিশনের আর একটি খেলায় উত্তেজনা ছড়ায়। আলমাগ্রো নামের একটি ক্লাবের বিরুদ্ধে হেরে যাওয়ায় নুয়েভা শিকাগো নামের একটি ক্লাবের সমর্থকরা ফুটবলারদের সাজঘরে ঢোকার চেষ্টা করেন। ফুটবলারদের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন তাঁরা। কোনও রকমে ফুটবলারদের সুরক্ষিত ভাবে স্টেডিয়াম থেকে বার করে আনে পুলিশ। এই ঘটনায় ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আর্জেন্টিনায় ফুটবলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা খুব পরিচিত। ‘সালভেমস আল ফুটবল’ নামের একটি এনজিও জানিয়েছে, ১৯৩০ সালের পর থেকে আর্জেন্টিনায় ফুটবল সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ৩০০-র বেশি মৃত্যু হয়েছে। অনেক চেষ্টা করেও সংঘর্ষ আটকানো যাচ্ছে না।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE