Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৯ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

SC East Bengal: এটিকে মোহনবাগানকে পাঁচ গোল দেওয়া মুম্বইকে রুখে দিল রেনেডির এসসি ইস্টবেঙ্গল

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৭ জানুয়ারি ২০২২ ২১:২৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
লড়াকু ড্র এসসি ইস্টবেঙ্গলের

লড়াকু ড্র এসসি ইস্টবেঙ্গলের
ছবি টুইটার

Popup Close

নিজেদের চেনাতে লাল-হলুদ সমর্থকরা বরাবরই একটা কথা বলে থাকেন, লড়াই। শুক্রবার বাম্বোলিমে সেই লড়াইটাই দেখা গেল এসসি ইস্টবেঙ্গলের ফুটবলারদের মধ্যে। শক্তিশালী এবং ধারে-ভারে অনেকটাই এগিয়ে থাকা মুম্বই সিটি এফসি-কে রুখে দিল এসসি ইস্টবেঙ্গল। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত চমৎকার ফুটবল উপহার দিল রেনেডি সিংহের দল। ড্যানিয়েল চিমার ব্যর্থতায় গোল এল না। কিন্তু লাল-হলুদের এই খেলা নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়। এই মুম্বই সিটিই গত মাসে পাঁচ গোল দিয়েছিল তারকা-খচিত এটিকে মোহনবাগানকে। তারাই শুক্রবার ইস্টবেঙ্গলের অনড় মনোভাবের কাছে আটকে গেল।

কোচিং ডিগ্রিতে রেনেডি পিছিয়ে থাকতে পারেন প্রাক্তন কোচ ম্যানুয়েল দিয়াসের কাছে, কিন্তু ভারতীয় ফুটবলারদের যে তিনি হাতের তালুর মতো চেনেন, সেটা পরিষ্কার হয়ে গেল শুক্রবারই। মাত্র একজন বিদেশিকে নিয়ে প্রথম একাদশ সাজিয়েছিলেন তিনি। যে বিদেশি মাঠে ছিলেন, সেই ড্যানিয়েল চিমা কেন এখনও লাল-হলুদ জার্সি পরছেন, সেটাই এখন অনেকের কাছে বড় প্রশ্ন।

প্রথম থেকেই লড়াকু ফুটবল উপহার দিলেন ইস্টবেঙ্গলের দেশজ ফুটবলাররা। রক্ষণে আদিল খান আবারও ভরসা দিলেন। মুম্বইয়ের আহমেদ জাহু, ইগর আঙ্গুলো, বিপিন সিংহ কেউই তাঁকে টপকে বেরোতে পারেননি। যখনই এসসি ইস্টবেঙ্গলের অর্ধে বল এসেছে, তখনই পাহাড়ের মতো সামনে দাঁড়িয়ে পড়েছেন আদিল।

Advertisement

পরিসংখ্যান বলছে, আঙ্গুলো এই মুহূর্তে আইএসএল-এর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা। আর জাহু খেলা তৈরি করার ক্ষেত্রে বাকিদের থেকে অনেকটাই এগিয়ে। কিন্তু এসসি ইস্টবেঙ্গল ফুটবলাররা দু’জনের কারিকুরি থামিয়ে দিলেন শুক্রবার। এর জন্য কৃতিত্ব প্রাপ্য রেনেডিরই। দেশীয় কোচ হলেও খুব অল্প সময়ে গোটা দলটাকে একটা ছন্দে বেঁধে দিয়েছেন তিনি। ডিফেন্স মজবুত করেছেন আদিলকে ফিরিয়ে। পাশাপাশি সঠিক জায়গায় সঠিক ফুটবলারকে খেলাচ্ছেন। এই কারণেই গোটা দল ঐক্যবদ্ধ হয়ে পড়েছে।

এই ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট নিয়ে ফিরতেই পারত এসসি ইস্টবেঙ্গল, যদি তাদের হাতে কোনও ভাল ফরোয়ার্ড থাকত। আক্রমণে চিমার সম্পর্কে যত কম বলা যায় ততই ভাল। খুব সাধারণ পাসও তিনি ঠিকঠাক দিতে পারেননি। সামনাসামনি সুযোগ পেলেও বল গোলে ঠেলতে পারেননি। ধারাভাষ্য দিতে থাকা প্রাক্তন ফুটবলার মেহতাব হোসেন তো বলেই ফেললেন, বহুদিন এ রকম খারাপ বিদেশি ফুটবলার তিনি দেখেননি।

মাত্র এক পয়েন্ট এলেও শক্তিশালী মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ড্র এসসি ইস্টবেঙ্গলের ফুটবলারদের জন্য নিয়ে এল একরাশ আত্মবিশ্বাস। এসসি ইস্টবেঙ্গলের কাছে আইএসএল-এর প্রথম রাউন্ডের খেলা শুক্রবারই শেষ। দ্বিতীয় রাউন্ডে ভাল কিছু হবে, এমন আশা সমর্থকরা এখন থেকেই দেখতে শুরু করছেন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement