Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

শুরুতেই বিপত্তি, নবরূপে সজ্জিত নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে প্রথম দিনেই নিভল আলো

আচমকা স্টেডিয়ামের একাংশ অন্ধকার হয়ে যায়। নিভে যায় আলো। বেগতিক দেখে খেলা কিছুক্ষণের জন্য থামিয়ে দেন আম্পায়াররা।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৯:১৪
Save
Something isn't right! Please refresh.
নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম।

নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম।
—প্রতীকী চিত্র

Popup Close

প্রথম দিনেই ‘মুখ পুড়ল’ নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামের। সকালে জাঁকজমক করে উদ্বোধনের পর প্রথম পরীক্ষাতেই কার্যত ব্যর্থ প্রধানমন্ত্রীর রাজ্যের স্টেডিয়াম। সূর্যালোক থেকে তখন সবে গোধূলিতে প্রবেশ করছে খেলা। ধীরে ধীরে এক এক করে জ্বলে উঠছিল স্টেডিয়ামের আলোগুলি। এর মাঝেই আচমকা স্টেডিয়ামের একাংশ অন্ধকার হয়ে যায়। নিভে যায় আলো। বেগতিক দেখে খেলা কিছুক্ষণের জন্য থামিয়ে দেন আম্পায়াররা। তবে এলইডি আলো হওয়ায় এ যাত্রা বড় লজ্জার হাত থেকে বাঁচা গিয়েছে। সঙ্গে সঙ্গেই নিভে যাওয়া অংশের আলো জ্বলেছে।

রসিকতা করে অনেকে বলছেন, মোতেরার নতুন স্টেডিয়াম এক 'ত্র্যহস্পর্শ'-এ আচ্ছন্ন। নাম নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম। উইকেটের ২ প্রান্তের নাম আদানি এবং রিলায়্যান্সের নামে। প্রথম দিনে বিদ্যুৎ বিভ্রাট ঘটবে এ আর নতুন কী।

এ দিন সকালে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন জো রুট। গোলাপি বলের টেস্ট শুরুর আগে বিরাট কোহালিও বৈদ্যুতিক আলো নিয়ে একরাশ উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন। সূর্যাস্তের পর ফিল্ডিং করার সময় এই আলোয় অসুবিধা হতে পারে বলে মনে করছেন ভারত অধিনায়ক।

Advertisement

কংগ্রেস নেতা রাহুল গাঁধী টুইট করে বলেন, ‘‘সত্যি সামনে এল। নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামের ২টি প্রান্তের নাম আদানি এবং রিলায়্যান্সের নামে। সভাপতিত্ব করলেন জয় শাহ। আমরা ২ জন, আমাদের ২ জন।’’


বুধবার সর্দার পটেল স্টেডিয়ামের নাম বদলে রাখা হয় নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম। ১ লক্ষ ১০ হাজার দর্শক আসনের এই স্টেডিয়ামে রয়েছে বহু অত্যাধুনিক ব্যবস্থা। সেই মাঠে আলোর স্তম্ভ নয়, ছাদ জুড়ে আলো লাগানো হয়েছে। দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের ‘রিং অব ফায়ার’-এর অনুকরণে তৈরি করা হয়েছে এই ব্যবস্থা। তবে ভারত অধিনায়ক খুশি হতে পারছেন না স্টেডিয়ামের আলো নিয়ে। কোহালি বলেন, “এই বিশাল ক্রিকেট মাঠে খেলার আমেজ অসাধারণ। তবে বসার জায়গার রঙের থেকেও আমার বেশি চিন্তা আলো নিয়ে।”

বিরাটের মতে এই ধরনের আলো থাকায় ক্যাচ মিস হতে পারে। তিনি বলেন, “পিছন দিকে দৌড়নোর সময় বল কোথায় রয়েছে তা বুঝতে অসুবিধা হতে পারে। দুবাইয়ে এমন অবস্থায় খেলতে হয়েছিল আমাদের। বলের অ্যাঙ্গেল, শরীর কোন জায়গায় তার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে। দ্রুত পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে।”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement