• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ম্যাথুকে ২ কোটি পাঠাতে হবে হংকং-এ...! ফের ফাঁস ‘মুকুল-কৈলাস’ ফোনালাপ

Mukul Roy Kailash Vijaybargiya
মুকুল রায় ও কৈলাস বিজয়বর্গীয়র কথোপকথনের নতুন অডিয়ো ফাঁস।

আবার হইচই শুরু ‘দুই বিজেপি নেতা’র একটি টেলিফোন সংলাপ নিয়ে। ২ অক্টোবরের পরে ফের ৭ অক্টোবর।

সোশ্যাল মিডিয়ায় রবিবার ভাইরাল হয়েছে টেলিফোন সংলাপের অডিয়ো ক্লিপটি। যে দু’জনের মধ্যে কথোপকথন হয়েছে, তাঁদের এক জনের কণ্ঠস্বর বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক তথা বাংলার দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়ের মতো। আর এক জনের কণ্ঠস্বর বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের মতো। ম্যাথুকে (সম্ভবত নারদ স্টিং অপারেশনের হোতা ম্যাথু স্যামুয়েল) হংকং-এ মোটা অঙ্কের টাকা পাঠানোর বিষয়ে কথা বলতে শোনা গিয়েছে দু’জনকে।

আনন্দবাজার ডিজিটাল ওই ক্লিপের সত্যতা যাচাই করেনি। তবে মুকুল রায়ের প্রতিক্রিয়া জানার জন্য তাঁকে ফোন করা হলে মুকুলবাবু ওই ক্লিপের সত্যতা নিয়ে কোনও প্রশ্ন তোলেননি। তাঁর ফোন বেআইনি ভাবে ট্যাপ করা হচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন।

যে অডিয়ো ক্লিপটি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়, তাতে কী শোনা যাচ্ছে? মুকুল রায়ের মতো যাঁর কণ্ঠস্বর, তাঁকে কয়েক বার ‘হ্যালো, হ্যালো’ বলতে শোনা যাচ্ছে প্রথমে। তার পরে ফোনের অন্য প্রান্তে থাকা ব্যক্তি বলছেন, ‘‘হ্যাঁ মুকুলদা, কৈলাস।’’ তখন ‘মুকুল রায়’ জানাচ্ছেন একটা গুরুত্বপূর্ণ কথা আছে। ‘কৈলাস’ বলছেন, ‘‘বলুন।’’ এর পরে ‘মুকুল রায়’ যা জানাচ্ছেন ‘কৈলাস’কে, তার সারকথা হল— ম্যাথু তাঁকে ফোনে জানিয়েছেন যে, ম্যাথুর কাছে ২৪ ঘণ্টা দৈর্ঘের একটা তথ্যচিত্র রয়েছে, যা প্রকাশিত হলে তৃণমূল শেষ হয়ে যাবে। ‘মুকুল’ আরও জানাচ্ছেন, ম্যাথুকে টাকাটা হংকং-এ পাঠাতে হবে।

শুনুন সেই অডিয়ো

আরও পড়ুন: পুলিশকে ফাঁসানোর ছক! ‘মুকুল-কৈলাসের’ কথোপকথনের টেপ ভাইরাল

‘মুকুল’ এর পরে ‘কৈলাসের’ কাছে জানতে চাইছেন, ‘‘হংকং-এ টাকাটা পাঠাব কী ভাবে? আর তাঁকে (ম্যাথুকে) বিশ্বাসই বা করব কী ভাবে?’’ ‘কৈলাস’ জানতে চাইছেন কত টাকা দিতে হবে? ‘মুকুল’ জানাচ্ছেন, ‘‘২ কোটি। ৫০ লক্ষ আগ্রিম...।’’

ভাইরাল হওয়া অডিও ক্লিপে ম্যাথুর সাহসের প্রশংসা করতে শোনা গিয়েছে ‘কৈলাস’কে। ‘মুকুল’ জানাচ্ছেন, যে তথ্যচিত্রের কথা ম্যাথু বলছে, তা যদি তৃণমূলকে শেষ করার জন্য যথেষ্ট হয়, তা হলে ‘ঘর-বাড়ি বেচে টাকা জোগাড় করব’। কিন্তু তাঁর প্রশ্ন, ম্যাথুকে কতটা বিশ্বাস করা যায়? এই প্রশ্নের জবাবেই ‘কৈলাস’ বলছেন, ‘‘তিনি খুব সাহসী, তিনি সিংহের মতো। যখন বলছেন, তখন কিছু একটা নিশ্চয়ই করবেন।’’ সে কথা শুনে ‘কৈলাস’কে এক বার ম্যাথুর সঙ্গে কথা বলে নিতে বলছেন ‘মুকুল’। তিনি বলছেন, ‘‘আপনি কথা বলুন, তার পরে আপনি আমাকে সঙ্কেত দিলে আমি পদক্ষেপ করব।’’ ‘কৈলাস’ বলছেন, ‘‘জুয়াটা খেলা যেতে পারে... এই জুয়াটা খেলা উচিত।’’ তাতে ‘মুকুল’ বলছেন, ‘‘ঠিক আছে, জুয়া খেলব, কিন্তু এক বার আপনার সঙ্গে (ম্যাথুর) কথা হওয়ার পরে।’’

আরও পড়ুন: সমীক্ষায় গো-বলয়ে কংগ্রেসের উত্থান, ভরাডুবির শঙ্কা বিজেপির! প্রভাব লোকসভাতেও?

অডিয়ো ক্লিপটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই গোটা রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে ফের চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এর আগে ২ অক্টোবরও ‘মুকুল-কৈলাস’ কথোপকথনের একটি অডিয়ো ভাইরাল হয়েছিল। তাতে মতুয়া সমাজে প্রভাব বাড়ানো এবং কয়েক জন পুলিশকর্তাকে চাপে ফেলা নিয়ে আলোচনা করতে শোনা গিয়েছিল দু’জনকে। সেই অডিয়োর বিষয়ে মুকুল রায় যা বলেছিলেন, এ দিনও আনন্দবাজারকে তিনি সে কথাই বলেছেন। তিনি বলেন, ‘‘আবার প্রমাণিত হল, আমার ফোনটা ট্যাপ করা হচ্ছে। এটা বেআইনি এবং আমার মৌলিক অধিকারে হস্তক্ষেপ।’’ মুকুল রায় আরও বলেন, ‘‘আমি আগামী কালই দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হব। ফোন তো কথা বলারই জন্য। ফোনে আমরা নিজেদের মধ্যে কথা তো বলবই। কোনও বেআইনি কথা তো আমি বলিনি। আদালতকে সব জানাব।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন