• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মৌসুমি বাতাসের দোসর ঘূর্ণাবর্ত, রাজ্যে আরও বৃষ্টির পূর্বাভাস

Rain
রাজ্যে আরও বর্ষণের পূর্বাভাস। —ফাইল ছবি

মৌসুমি বাতাসের প্রভাবে বঙ্গে ছন্দে রয়েছে বর্ষা। এ বার তার সঙ্গত করতে চলেছে ঘূর্ণাবর্ত। এই জোড়া ফলার জেরে আগামী সপ্তাহ থেকে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ আরও বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেই মনে করছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। হাওয়া অফিসের মতে, বঙ্গোপসাগরে নতুন একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছে। তার জেরে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ আরও বাড়বে।

এই মুহূর্তে অন্ধ্রপ্রদেশের উত্তর এবং ওড়িশার দক্ষিণ উপকূল ছুঁয়ে রয়েছে ওই ঘূর্ণাবর্তটি। তার জেরে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে তৈরি হয়েছে নিম্নচাপ। সেই নিম্নচাপের গণ্ডির মধ্যে পড়ছে এ রাজ্যও। এই মুহূর্তে রাজ্যে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় রয়েছে। তার জেরে বৃষ্টিপাত চলছে বিভিন্ন এলাকায়। তার সঙ্গে যোগ হবে বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের শক্তিও। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই রাজ্যে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ আরও বাড়বে বলেই মনে করছে আবহাওয়া দফতর। কিন্তু উত্তরবঙ্গ নয়, ঘূর্ণাবর্তের জেরে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গেই বর্ষণের তীব্রতা বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে। ওড়িশার উপকূলেও বৃষ্টি হবে।

বর্ষণের জোরালো প্রভাব পড়তে পারে রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকায়। এ কারণে মৎস্যজীবীদের জন্য সতর্কতা জারি করা হয়েছে। তাঁদের আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গভীর সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: ‘ভারতকে ভালবাসে আমেরিকা’, মোদীর শুভেচ্ছাবার্তার জবাব ট্রাম্পের​

দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টিপাত বাড়লেও, আর্দ্রতার জেরে অস্বস্তি বজায় থাকবে বলেই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। এ দিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি বেশি। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭ ডিগ্রি, যা স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি বেশি। আকাশ মেঘলা এবং সেই সঙ্গে বিভিন্ন এলাকায় বর্ষণেরও পূর্বাভাস রয়েছে।

আরও পড়ুন: হাসপাতালে ভর্তি কোভিড রোগীর চিকিৎসায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন প্রয়োগ বন্ধ করল হু​

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন