• মধুমিতা দত্ত
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নয়া বিধি নিয়ে আজ আলোচনা যাদবপুরে

Jadavpur University
ছবি: সংগৃহীত।

কলকাতা, যাদবপুর-সহ রাজ্যের পুরনো বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে দীর্ঘদিন ধরে কোনও কার্যকর ‘স্ট্যাটিউট’ বা বিধি নেই। সংশোধিত বিধি চালু করার দাবি উঠেছে বারে বারেই। এই পরিস্থিতিতে আজ, মঙ্গলবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন বিধি চালু করার বিষয়ে আলোচনা হবে কর্মসমিতিতে।

তৃণমূল কংগ্রেস রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন সংশোধন করা হয়েছিল ২০১১ সালে। এর ফলে পুরনো বিধি সংশোধনের প্রয়োজন দেখা দেয়। সেই বিষয়ে উদ্যোগী হয় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। বিধির খসড়া তৈরি করে তৎকালীন রাজ্যপাল-আচার্যের কাছে পাঠানো হয়। সেই খসড়া ২০১৬ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরে এলে দেখা যায়, সরকার বা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরোধিতা করে সংবাদমাধ্যমে কিছু বললে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক, শিক্ষাকর্মীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য রাজ্য সরকার সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়কে নির্দেশ দিতে পারবে, এমন একটি ধারা খসড়া বিধিতে রাখা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সব স্তরেই আপত্তি ওঠে। অভিযোগ ওঠে, বিষয়টিতে রাজ্য সরকারের হাত আছে। তা নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকারা আন্দোলনে নামেন। যাদবপুর সূত্রের খবর, কর্মসমিতিতে বিধির যে-খসড়া নিয়ে আলোচনা হবে, তাতে এই ধারাটি বাদ দেওয়া হয়েছে।

বিধি না-থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালনা ক্ষেত্রে অসুবিধা হচ্ছে বলে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের অভিযোগ। বিধি সংশোধিত না-হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নীতি নির্ধারক ‘বডি’ বা সংস্থাগুলি নির্বাচিত প্রতিনিধি-শূন্য হয়ে পড়ে। পাশাপাশি ইন্টারডিসিপ্লিনারি স্টাডিজ়, ল অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বা আইএসএলএম ফ্যাকাল্টির ডিগ্রি দেওয়ার ক্ষমতা এখনও নেই। কারণ, আইএসএলএম ফ্যাকাল্টি চালু হয় ২০১১ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন সংশোধনের পরে। আইন সংশোধন করা হলেও সংশোধিত বিধি তৈরি না-হওয়ায় এই আইএসএলএম কোনও ডিগ্রি দিতে পারে না পড়ুয়াদের। ইঞ্জিনিয়ারিং, বিজ্ঞান বা কলা ফ্যাকাল্টি থেকে ডিগ্রি দেওয়া হয়।

এই ক’বছরে যাদবপুরের শিক্ষক সংগঠনগুলি বারে বারেই সংশোধিত বিধি চালু করার দাবি জানিয়ে এসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির (জুটা) প্রতিনিধিরা গত মাসে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে দেখা করে বিধি না-থাকার সমস্যার বিষয়টি তাঁকে জানান। 

শিক্ষা সূত্রের খবর, সংশোধিত বিধি চালু করার বিষয়ে বিকাশ ভবন থেকে সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়-কর্তৃপক্ষকে সবুজ সঙ্কেত দেওয়া হয়েছে। তিন বছর পরে বিধির বিষয়টি নিয়ে আজ আবার আলোচনা হতে চলেছে কর্মসমিতিতে। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন