নিজাম প্যালেসে সিবিআইয়ের দফতরে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বসে আছেন একটি সোফায়। ভিতরের ঘরে তখন কণ্ঠস্বর পরীক্ষায় বসেছেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। নারদ স্টিং অপারেশন কাণ্ডে বুধবার এ ভাবেই ‘ভয়েস ম্যাচিং টেস্ট’ বা স্বর-সাযুজ্য যাচাই করা হল শোভনবাবুর। এ দিন একই মামলায় স্বর পরীক্ষায় বসতে হয়েছে তৃণমূল সাংসদ অপরূপা পোদ্দারকেও।

বান্ধবী বৈশাখীকে নিয়েই এ দিন সকালে সিবিআইয়ের দফতরে যান শোভনবাবু। তাঁরা সেখানে পৌঁছনোর কয়েক ঘণ্টা পরে নিজাম প্যালেসে হাজির হন আরামবাগের তৃণমূল সাংসদ অপরূপাদেবী। শোভনবাবুকে এ দিন প্রথমে প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেন সিবিআইয়ের তদন্তকারীরা। কণ্ঠস্বর মেলানোর পরীক্ষা করা হয় তার পরে। এবং শোভনবাবুর সেই পরীক্ষা চলাকালীন বৈশাখীদেবী বাইরের সোফায় ঠায় বসে অপেক্ষা করেন বলে সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে। একই ভাবে অপরূপাদেবীরও কণ্ঠস্বর মেলানোর পরীক্ষা হয়। বাইরে বেরিয়ে অপরূপাদেবী বলেন, ‘‘যা জিজ্ঞাসা করেছে, তার জবাব দিয়েছি।’’

শারীরিক অসুস্থতার জন্য ভয়েস ম্যাচিং টেস্ট পরে করানোর আবেদন জানিয়ে ইতিমধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছেন তৃণমূল নেতা ও কলকাতা পুরসভার কাউন্সিলর ইকবাল আহমেদ। তাঁর আইনজীবী রাজদীপ মজুমদার বলেন, ‘‘এ দিন বিচারপতি জয়মাল্য বাগচীর আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মামলার শুনানি শুক্রবার করার জন্য আর্জি জানানো হয়েছিল। বিচারপতি জানান, বিরুদ্ধ পক্ষকে (সিবিআই) শুনানির নোটিস পাঠাতে হবে।’’

অন্য কয়েক জন নেতা-মন্ত্রী ছাড়াও কলকাতা পুরসভার প্রাক্তন ডেপুটি মেয়র ইকবালকে নারদ স্টিং অপারেশনের ভিডিয়োয় ছদ্মবেশী সাংবাদিক ম্যাথু স্যামুয়েলের কাছ থেকে টাকা নিতে দেখা গিয়েছে বলে অভিযোগ। সেই সময় যে-কথাবার্তা হয়েছিল, তার সঙ্গে অভিযুক্তদের স্বর মেলানো হচ্ছে প্রমাণ সংগ্রহের তাগিদেই। প্রথমে বেশির ভাগ অভিযুক্তই কণ্ঠস্বর মেলানোর পরীক্ষা নিয়ে আপত্তি তুলেছিলেন। পরে নিম্ন আদালতের নির্দেশ পেয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে ডেকে সেই ‘ভয়েস ম্যাচিং’ পরীক্ষা করছে সিবিআই। এ বার সিবিআইয়ের ডাক পাওয়ার পরে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন ইকবাল।

রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকেও এ দিন তলব করা হয়েছিল। সিবিআই সূত্রের খবর, পূর্বনির্ধারিত প্রশাসনিক কর্মসূচি থাকায় তিনি এ দিন আসতে পারছেন না বলে চিঠি দিয়েছেন শুভেন্দুবাবু। চিঠিতে লিখেছেন, আজ, বৃহস্পতিবার তিনি সিবিআইয়ের অফিসে যাবেন। নারদ-কাণ্ডে জড়িত অন্যতম সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদারকে বৃহস্পতিবার তলব করা হয়েছে। এর আগেও এক বার তাঁকে ডেকে পাঠিয়েছিল সিবিআই। পূর্বনির্ধারিত রাজনৈতিক কর্মসূচি থাকায় সে-বার তিনি আসতে পারছেন না বলে চিঠি দিয়েছিলেন। আবার তাঁকে তলব করা হয়েছে। পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র, পুলিশকর্তা এসএমএস মির্জা, সাংসদ সৌগত রায়ের স্বর-পরীক্ষা হয়েছে আগেই।