সূর্যকান্ত মিশ্র, সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক

স্টিং অপারেশনে যা দেখা যাচ্ছে, ভয়ঙ্কর। তৃণমূলের নেতারা মানুষের হাজার হাজার কোটি কোটি টাকা লুঠ করেছে। নির্বাচনের মুখে এত বড় ঘটনা সামনে এল। পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হোক। প্রয়োজনে নির্বাচন স্থগিত রাখা হোক। তত দিন রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন চলুক।

 

অধীর চৌধুরী, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি
তৃণমূল যে চোর এবং লুটেরাদের দল সেটা প্রমাণ হল। এখনই ইস্তফা দিন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন:

নারদের স্টিং অপারেশন, ঘুষ বিতর্কে জড়ালেন তৃণমূলের ১১ শীর্ষ নেতা

তহেলকা স্টিং অপারেশনে সেই ১৪ মার্চ জর্জের ইস্তফা চেয়েছিলেন মমতা

 

সিদ্ধার্থনাথ সিংহ, বিজেপি নেতা

মা-মাটি-মানুষের নাম করে ২০১১-য় এরা ক্ষমতায় এসেছিল। আজ এদের আসল পরিচয় বেরিয়ে পড়ল। কংগ্রেসের গর্ভ থেকে জন্ম হয়েছে এই দলের। দুর্নীতিগ্রস্ত হতে কংগ্রেসের সময় লেগেছিল ৫০ বছর। এদের পাঁচ বছরও লাগল না।

 

প্রদীপ ভট্টাচার্য, কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ

এখনই পদত্যাগ করা উচিত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তৃণমূলের ক্ষমতায় থাকার আর কোনও নৈতিক অধিকার নেই।