• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আগামী বছরই অবসর নেওয়ার পরিকল্পনা ছিল বাবলুর, কিন্তু তার আগেই সব শেষ

Bablu
পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় নিহত হন হাওড়া-বাউড়িয়ার চককাশীর বাসিন্দা বাবলু সাঁতরা। ফাইল চিত্র।

আর একটি বছর কাটিয়ে দিতে পারলেই নিশ্চিন্ত। প্রহর গুনছিল গোটা পরিবার। সামনেই বছরই ঝুঁকির চাকরি থেকে স্বেচ্ছাবসর নেওয়ার পরিকল্পনা ছিল। সেই মতো ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েও দিয়েছিলেন  হাওড়া-বাউড়িয়ার চককাশীর বাসিন্দা বাবলু সাঁতরা। কিন্তু, তার আগেই সব শেষ।

বৃহস্পতিবার  পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় সিআরপি কনভয়ে গাড়িবোমা হামলায় নিহত হন ৪৪ জন জওয়ান। নিহতদের মধ্যে রয়েছেন ৩৯ বছরের বাবলুও। গত কাল সকালে শেষ বার কথা হয়েছিল স্ত্রীয়ের সঙ্গে। তখনই জানিয়েছিলেন বাসে করে শ্রীনগর যাওয়ার কথা। বিকেলেই টিভিতে জঙ্গি হামলার কথা জানতে পারেন মিতা। খবরটা শুনেই আঁতকে উঠেছিলেন। তার পর থেকে বারবার ফোন করেও যোগাযোগ করতে পারেননি। চেষ্টা করেছিলেন সিআরপিতে কর্মরত বাবলুর বন্ধুদের সঙ্গে যোগাযোগ করার। তাতে সফল হননি। শেষে পর্যন্ত সেনাবাহিনীর তরফে ফোন করেই বাবলুর মৃত্যুর খবর জানানো হয় পরিবারে। খবরটা শোনার পর থেকে শোকস্তব্ধ গোটা এলাকা।

ছোটবেলাতেই বাবাকে হারিয়েছিলেন বাবলু। অভাবের মধ্যে টিকে থাকার লড়াই শুরু সেই থেকে। সালটা ২০০০, কুড়ি বছর বয়সে যোগ দেন বাহিনীতে। কিছুটা স্বাচ্ছন্দ্য ফিরেছিল পরিবারের। কিন্তু, ক্রমেই ঝুঁকি বাড়ছিল চাকরিতে। একদিকে সীমান্তে ক্রমাগত বাড়ছিল জঙ্গি কার্যকলাপ। পাশাপাশি পরিবার থেকে দীর্ঘদিন দূরে থাকতে হতো। বাড়ির ছেলেটা এই ঝুঁকির চাকরি ছেড়ে দিক— চাইছিল পরিবারও। আর তাই পরিকল্পনা ছিল আগামী বছর অবসরের। পরিবারের মূল রোজগারে সদস্য বলতে বাবলুর। স্ত্রী ছাড়াও রয়েছে সাত বছরের একমাত্র মেয়ে পিয়ালি। রয়েছেন কুড়ি বছরের এক ভাইও। ছেলের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকেই বাকরুদ্ধও সত্তর বছরের মা বনমালি সাঁতরা।

ভারতীয় সেনা সম্পর্কে এই তথ্যগুলি জানতেন?

দুঃসংবাদটি শোনার পর থেকে কথা হারিয়েছেন বছর তেত্রিশের মিতাও। কী বলবেন জানেন না, জানেন না মেয়ের ভবিষ্যত কী হবে। আগামী দিনে কী করবেন, সে সবই অন্ধকারে। মাঝে মাঝে শুধু বলছেন, আগামী ২ মার্চ বাড়ি আসার কথা ছিল। ছুটিও মঞ্জুর হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু...

আরও পড়ুন: ৩৫০ কেজি বিস্ফোরকের গাড়িবোমা কাশ্মীরে, হত ৪৪ সিআরপিএফ জওয়ান

আরও পড়ুন: সিরিয়ার কায়দায় পুলওয়ামায় হামলা হতে পারে, আগাম জেনেও নেওয়া যায়নি ব্যবস্থা!

সিআরপি দফতরের সামনে বাবলু সাঁতরা। ফাইল চিত্র। 

আরও পড়ুন: রাস্তায় পড়ে নিহতদের ব্যাগ-রুকস্যাক, কান্না চেপে সেগুলো কুড়চ্ছেন সেনারা

(বাংলার রাজনীতি, বাংলার শিক্ষা, বাংলার অর্থনীতি, বাংলার সংস্কৃতি, বাংলার স্বাস্থ্য, বাংলার আবহাওয়া - পশ্চিমবঙ্গের সব টাটকা খবর আমাদের রাজ্য বিভাগে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন