• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

তৃণমূল কর্মী খুনে অভিযুক্ত বিধায়ক

murder
প্রতীকী ছবি।

ভর দুপুরবেলা জুয়ার ঠেকে কুপিয়ে খুন করা হল এক তৃণমূল কর্মীকে। সেই খুনের ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে এফআইআর হয়েছে খোদ শান্তিপুরের তৃণমূল বিধায়ক অরিন্দম ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে। 

মঙ্গলবার নদিয়ার শান্তিপুরের ব্রহ্মতলা বাজারে এই খুনকে কেন্দ্র করে এলাকায় তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ বিরোধ যেমন তীব্র হয়েছে তেমনই দলীয় বিধায়কের নাম খুনের সঙ্গে জড়ানোর অস্বস্তিতে পড়েছে তৃণমূল। ফের সামনে চলে এসেছে অজয় দে ও অরিন্দম ভট্টাচার্যের দীর্ঘদিনের পুরনো লড়াইয়ের প্রসঙ্গ। 

শান্তনু মাহাতো ওরফে গনা নামে যে ব্যক্তি খুন হয়েছে সে শান্তিপুরের পুরপ্রধান অজয় দের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত। এই ঘটনার পিছনে শান্তিপুরের বিধায়ক অরিন্দম ভট্টাচার্যের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। যদিও অরিন্দমবাবু এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তৃণমূলের জেলা পর্যবেক্ষক রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেছেন, ‘‘পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, এই ঘটনার সঙ্গে যে-ই যুক্ত থাকুক না কেন তার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করতে হবে, তা তিনি যে দলেরই হোন না কেন।’’

আরও পড়ুন: বাংলাই নিশানা বিজেপির: মমতা

অরিন্দমবাবুর তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা খুনের ষড়যন্ত্রের অভিযোগ সম্পর্কে মন্তব্য করেন, “আমরা দলের সকলে এক সঙ্গে আছি। যাঁরা এ সব বলছেন তাঁরা আসলে দলের কেউ নন।” 

পুরপ্রধান অজয় দে-র কথায়, “কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে সেটা শহরের মানুষ ভাল করেই জানে। পুলিশও জানে। আমরা চাই, পুলিশ তদন্ত করে এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির ব্যবস্থা করুক। নিহত যুবক তৃণমূলের সক্রিয় সমর্থক ছিলেন। তাঁকে এ ভাবে খুন করাটা মানুষ ভাল চোখে দেখছেন না।”

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন