Advertisement
০৯ ডিসেম্বর ২০২২
Robbery

Robbery: রড দিয়ে বাবা-ছেলেকে পিটিয়ে ডাকাতি গোঘাটে

সরোজবাবুর ঘর লন্ডভন্ড করেও তেমন কিছু না পেয়ে তাঁকে দিয়ে দেবাশিস-দেবশ্রীকে ঘুম থেকে তোলায় দুষ্কৃতীরা।

সরোজ মণ্ডল।

সরোজ মণ্ডল।

নিজস্ব সংবাদদাতা
গোঘাট শেষ আপডেট: ২৫ অগস্ট ২০২২ ০৯:২৫
Share: Save:

মেন গেটের দরজার তালা ভেঙে বাড়িতে ঢুকে গৃহকর্তা এবং তাঁর ছেলেকে রড দিয়ে পিটিয়ে গয়না এবং নগদ বেশ কয়েক হাজার টাকা নিয়ে পালাল দুষ্কৃতীরা। মঙ্গলবার গভীর রাতে ঘটনাটি ঘটেছে গোঘাটের ভাদুর পঞ্চায়েতের মিরগা গ্রামে। পুলিশ তদন্ত শুরু করলেও বুধবার রাত পর্যন্ত দুষ্কৃতীরা ধরা পড়েনি। উদ্ধার হয়নি গয়না-টাকা।

Advertisement

এসডিপিও (আরামবাগ) অভিষেক মণ্ডল বলেন, ‘‘রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছিল। এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে দুষ্কৃতীদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে।’’

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে মিরগা মণ্ডলপাড়ার সরোজ মণ্ডল, তাঁর ছেলে দেবাশিস, পুত্রবধূ দেবশ্রী এবং নাতনি ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। সরোজবাবুর স্ত্রী আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন। পরিবারের অভিযোগ, রাত ১টা নাগাদ তিন দুষ্কৃতী রড এবং ধারাল অস্ত্র হাতে বাড়িতে ঢোকে। এক জন বাইরে পাহারায় ছিল। প্রত্যেকের মুখে গামছা বাঁধা ছিল। তালা ভাঙার আওয়াজে ঘুম ভেঙে সরোজবাবু বেরিয়ে আসেন। কিছু বলার সুযোগ না দিয়ে দুষ্কৃতীরা তাঁকে রডের বাড়ি মারতে থাকে। তাঁর হাত ভেঙে যায়।

সরোজবাবুর ঘর লন্ডভন্ড করেও তেমন কিছু না পেয়ে তাঁকে দিয়ে দেবাশিস-দেবশ্রীকে ঘুম থেকে তোলায় দুষ্কৃতীরা। দেবাশিসকেও রড দিয়ে মারে। তাঁর ঘরে ঢুকে আলমারির চাবি চায়। না দিলে দেবাশিস-দেবশ্রীর একরত্তি মেয়েকে তুলে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেয়। বাধ্য হয়ে তাঁরা চাবি দিয়ে দেয়। আলমারি খুলে দুষ্কৃতীরা কয়েক ভরি সোনার গয়না এবং নগদ টাকা হাতিয়ে নেয়।

Advertisement

সরোজবাবু বলেন, ‘‘আধ ঘণ্টা ধরে তাণ্ডব চালিয়ে ডাকাতেরা আমাদের একটা ঘরে বন্ধ করে পালায়। আমাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে দরজা খুলে দেন। ডাকাতরা সম্ভবত গাড়ি নিয়ে এসেছিল। পালানোর সময় ফোন করে গাড়ি ডাকছিল।’’

দুষ্কৃতীরা পালানোর পরে খবর পেয়ে গোঘাট থানার পুলিশ আসে। গোঘাট প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে প্রহৃত বাবা-ছেলের প্রাথমিক চিকিৎসা হয়।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.