Advertisement
৩০ মে ২০২৪
Bhowanipore Murder Case

Bhawanipore Couple Murder Case: তিন দিনের মাথায় ভবানীপুরে জোড়া খুনের কিনারা, গ্রেফতার তিন, চলছে মূল চক্রীর খোঁজ

বুধবারই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন ভবানীপুরের খুনের ঘটনার ৯৯ শতাংশ তদন্ত সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছে।

রশ্মিতা শাহ এবং অশোক শাহ।

রশ্মিতা শাহ এবং অশোক শাহ। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৯ জুন ২০২২ ০৮:৩০
Share: Save:

তিন দিনের মাথায় কিনারা হল ভবানীপুর হত্যাকাণ্ডের। তদন্তে নেমে তিন জনকে গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর, সিসিটিভি ফুটেজ দেখে অভিযুক্তদের চিহ্নিত করা হয়েছে। এক আত্মীয়কে জিজ্ঞাসাবাদের সূত্র ধরে তদন্ত এগোচ্ছিল। আর্থিক লেনদন সংক্রান্ত সমস্যার কারণেই খুন হয়েছেন ভবানীপুরের শাহ দম্পতি, প্রাথমিক ভাবে এমনটাই মনে করছে পুলিশ। অভিযুক্তরা টাকার বিনিময়ে খুন করেছিল বলেও পুলিশ মনে করছে। তবে এখনও মূল চক্রী অধরা বলেও পুলিশ সূত্রে খবর।

পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতেরা মৃত দম্পতির পূর্বপরিচিত। এই ঘটনায় প্রথমে দু’জনকে আটক করে পুলিশ। বুধবার সারা রাত আটকে রেখে ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। তখনই জেরার মুখে উঠে আসে আর এক অভিযুক্তের নাম। এর পর গ্রেফতার করা হয় ওড়িষার বাসিন্দা ওই অভিযুক্তকেও। এই হত্যাকাণ্ডে দু’-তিন জন যুক্ত থাকতে পারে বলেও পুলিশের অনুমান।

প্রসঙ্গত, সোমবার দুপুরে মুখ্যমন্ত্রীর পাড়াতেই খুন হন শাহ দম্পতি। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট অনুযায়ী, ব্যবসায়ী অশোক শাহকে ছুরি মেরে খুন করা হয়। প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতে পুলিশের অনুমান, তাঁর স্ত্রী রশ্মিতা শাহকে গুলি করে খুন করা হয়েছে। পুরো ঘটনাটি ঘটে সোমবার দুপুর দেড়টা নাগাদ।

বুধবার উত্তরবঙ্গ সফর থেকে ফিরে ভবানীপুর পৌঁছন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে পৌঁছে তিনি জানান, খুনের ঘটনার ৯৯ শতাংশ তদন্ত সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। শীঘ্রই খুনের কিনারা হয়ে যাবে বলে তিনি জানান। ঘটনাস্থল ঘুরে দেখে মমতা সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘ভবানীপুরে এ ধরনের ঘটনা বরদাস্ত করব না। ভবানীপুর শান্ত ছিল, শান্তই থাকবে।’’

সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তেফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ

অন্য বিষয়গুলি:

Bhowanipore Murder Case Murder arrested
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE