Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

আমেরিকায় গিয়ে হোটেলে উঠবেন না ইমরান, সিদ্ধান্ত খরচ বাঁচাতেই

সংবাদ সংস্থা
ইসলামাবাদ ০৮ জুলাই ২০১৯ ১৫:৪৫
ইমরান খান। —ফাইল চিত্র।

ইমরান খান। —ফাইল চিত্র।

মন্ত্রী-আমলাদের খরচে রাশ টেনেছিলেন আগেই। এ বার নিজেও সেই রাস্তাতেই হাঁটলেন ইমরান খান। আগামী ২১ জুলাই তিনদিনের মার্কিন সফরে যাচ্ছেন তিনি। কিন্তু কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা খরচ করে বিলাসবহুল হোটেলে থাকার পরিবর্তে, সেখানে পাক রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে থাকার সিদ্ধান্ত নিলেন তিনি। সরকারি টাকার অপচয় রুখতেই তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে সোমবার পাক সংবাদমাধ্যমের তরফে জানানো হয়েছে।

বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাকিস্তানি রাষ্ট্রদূত হিসাবে নিযুক্ত রয়েছেন আসাদ মজিদ খান। য়াশিংটন ডিসিতে তাঁর বাসভবনেই থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইমরান খান। যদিও পাক প্রধানমন্ত্রী এই সিদ্ধান্ত মনঃপুত হয়নি মার্কিন সিক্রেট সার্ভিস এবং ওয়াশিংটন ডিসির প্রশাসনিক কর্তাদের।

সারা বছর বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনেতা ওয়াশিংটন সফরে যান। সে দেশের মাটিতে পা রাখার সঙ্গে সঙ্গেই সেখানে তাঁদের নিরাপত্তা সংক্রান্ত যাবতীয় দায়িত্ব বর্তায় মার্কিন সিক্রেট সার্ভিসের উপরেই। আবার ওই রাষ্ট্রনেতাদের আগমনে শহরে যানজট সংক্রান্ত সমস্যা যাতে না দেখা দেয়, স্থানীয় মানুষের রোজকার জীবনে যাতে প্রভাব না পড়ে, যৌথ ভাবে সেই দায়িত্ব সামলায় যুক্তরাষ্ট্রীয় সরকার এবং স্থানীয় প্রশাসন।

Advertisement

আরও পড়ুন: ভোর রাতে কামান ধ্বংসকারী ‘নাগ’-এর সফল পরীক্ষা করল ভারত​

এমনিতেই ওয়াশিংটনের ওই এলাকায় ভারত, তুরস্ক, জাপান-সহ একাধিক দেশের দূতাবাস রয়েছে। রয়েছে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের বাসভবনও। সেখানে একাধিক মার্কিন আধিকারিক, সংবাদমাধ্যম এবং বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করবেন ইমরান। কিন্তু পাক রাষ্ট্রদূতের বাসভবন আকারে তেমন বড় না হওয়ায়, বৈঠক করতে ইমরানকে বার বার পাক দূতাবাসে যেতে হতে পারে। তাতেই দুশ্চিন্তা বেড়েছে সিক্রেট সার্ভিস এবং মার্কিন প্রশাসনের। কনভয় সমেত বারবার ইমরান রাস্তায় বেরোলে, তাতে যানজট সৃষ্টি হবে বলে আশঙ্কা তাঁদের।

আরও পড়ুন: এক ধাক্কায় ৯০০ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স, আশঙ্কার মেঘ দেখছে শেয়ার বাজার​

সরকারি টাকার অপচয় রুখতে এর আগেও একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইমরান খান। ক্ষমতায় এসে প্রথমেই মন্ত্রী-আমলাদের জন্য বরাদ্দ খাবারের পরিমাণে কাটছাঁট করেন তিনি। গত বছর আবার ফার্স্টক্লাসে চেপে মন্ত্রীদের বিমান সফর নিয়েও আপত্তি তোলেন। দেশের মধ্যে হোক বা বিদেশে, সরকারের টাকায় ফার্স্টক্লাসে চেপে ঘোরা যাবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন তিনি। প্রেসিডেন্ট হোন বা প্রধানমন্ত্রী অথবা গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী সকলকেই বিজনেস ক্লাসে যাত্রা করার নির্দেশ দেন।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ

আরও পড়ুন

Advertisement