বয়স হয়েছে আশি। কোমর সোজা করতে বেগ পেতে হয়। সেই অবস্থাতেই চারদিন ঘরে তালাবন্দি রইলেন মঞ্জুমালা বসুমল্লিক নামে এক বৃদ্ধা। শেষে পুলিশ ডেকে উদ্ধার করা হল তাঁকে।

ঘটনাটি ঘটেছে বাগুইআটি থানার অন্তর্গত কেষ্টপুরের সমরপল্লিতে। বছরখানেক আগে ৮০ বছরের মঞ্জুমালা ভাইপো গৌতম বসুমল্লিকের সঙ্গে ওই এলাকায় মালা মণ্ডল নামে এক ভদ্রমহিলার বাড়িতে ভাড়া থাকতে শুরু করেন।

সব ঠিকঠাকই ছিল। তবে গত কয়েকদিন ধরে ঘরের বাইরে মঞ্জুমালাদেবীকে দেখতে পাননি কেউ। তাই সন্দেহ জাগে। সোমবার ডাকা হয় পুলিশকে। তালা ভাঙতেই দেখা যায়, ঘরের এক কোণে কিছু পাউরুটির টুকরো পড়ে রয়েছে। আর অন্য দিকে পড়ে রয়েছেন মঞ্জুমালাদেবী।

 

আরও পড়ুন: মোহনবাগান তাঁবুতে অবহেলায় ধ্বংস গোষ্ঠ পালের ট্রফি-মেডেল, কাঁদতে কাঁদতে থানায় গেলেন ছেলে​

আরও পড়ুন: জঙ্গিরা যে ভাষা বোঝে, সেই ভাষাতেই তাদের জবাব দেওয়া গিয়েছে, বললেন মোদী​

তড়িঘড়ি অ্যাম্বুল্যান্স ডেকে পাঠানো হয়। ঘরের মধ্যে থেকে মঞ্জুমালাদেবীকে উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক চিকিত্সার জন্য তাঁকে পাঠানো হয় স্থানীয় একটি নার্সিংহোমে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শৌচালয় পর্যন্ত যাওয়ার উপায় ছিল না। তাই ঘরের মধ্যে এদিক ওদিক শৌচকর্ম সারতে বাধ্য হন মঞ্জুমালাদেবী। তবে বিষয়টি চাউর হওয়ার পরও খোঁজ মেলেনি তাঁর ভাইপোর। বাড়ির মালিক মালা মণ্ডলও তাঁর খোঁজ দিতে পারেননি।

তবে এতকিছুর পরও ভাইপোকে দোষ দিতে নারাজ ওই বৃদ্ধা। ভাইপোর বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তিনি পুলিশকে বলেন, ‘‘এতদিন খাবার-দাবার, ওষুধপত্র ওই এনে দিত। নিশ্চয়ই কোনও বিপদে পড়েছে বাছা। নইলে আমাকে ফেলে এ ভাবে চলে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না।’’ তবে গৌতম বসুমল্লিকের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে বাগুইআটি থানার পুলিশ।

(শহরের সেরা খবর, শহরের ব্রেকিং নিউজ জানতে এবং নিজেদের আপডেটেড রাখতে আমাদের কলকাতা বিভাগ পড়ুন।)