বিধ্বংসী আগুন লেনিন সরণির একটি বহুতলের ছাদের অস্থায়ী কাঠামোয়। দমকলের ছ’টি ইঞ্জিন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে। আগুন লাগার পর আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে আশে পাশের বহুতলের বাসিন্দাদের মধ্যে।

রবিবার পৌনে ৬টা নাগাদ প্রথম আগুনের শিখা দেখা যায় বহুতলের ছাদে। প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, বহুতলের ছাদে অ্যাজবেসটসের ছাউনি দেওয়া অস্থায়ী কাঠামোতে আগুন লাগে। দাহ্য পদার্থ থাকায় দ্রুত আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে পুড়ে উপর থেকে ভেঙে পড়তে থাকে অ্যাসবেসটস এবং অস্থায়ী কাঠামোর বিভিন্ন অংশ। তবে দমকলের পক্ষে স্বস্তির খবর, কেউ ওই বাড়িতে আটকে নেই।

দমকল কর্মীরা প্রথমে নীচে থেকে আগুনে জল দেওয়ার চেষ্টা করেন এবং আশপাশে জল দিয়ে নিশ্চিত করার চেষ্টা করেন যাতে আগুন অন্য কোনও বাড়িতে ছড়িয়ে না পড়ে। এর পরই দমকল কর্মীরা পাশের একটি বাড়ির ছাদে উঠে সরাসরি জল দেওয়া শুরু করেন। পাশাপাশি নিয়ে আসা হয় হাইড্রোলিক ল্যাডার যাতে দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা যায়।

আরও পড়ুন: জুনিয়র ডাক্তাররা নমনীয় হতেই জট খোলার আশা, নবান্নে কালই বড় বৈঠক ডাকতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী​

আরও পড়ুন: মহিলা সংরক্ষণ বিল থেকে ব্যালট ফেরানো, মোদীর ডাকা সর্বদলীয় বৈঠকে উঠল একাধিক দাবি​

ওই বহুতল চাঁদনি চকের মতো ঘিঞ্জি এলাকায় অবস্থিত হওয়ায় আগুন ছড়িয়ে পড়ার একটা সম্ভবনা রয়েছে। সেই কারণেই আতঙ্ক ছড়ায় বাসিন্দাদের মধ্যে। প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, ওই অস্থায়ী ছাউনিটি একটি হোটেলের। পুরসভা সূত্রে খবর, ওই কাঠামোটি বেআইনি নির্মাণ।

তবে স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় দমকল কর্মীরা আগুন যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে তা নিশ্চিত করেন। পাঁচ তলার ছাদে আগুন প্রথমে পৌঁছতে না পারলেও প্রায় এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুনের অনেকটা কাছাকাছি গিয়ে আগুন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন দমকল কর্মীরা। আগুনের জন্য বন্ধ রাখা হয় লেনিন সরণি। ঘটনাস্থলে পৌঁছন কলকাতা পুলিশের বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যরা।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।