৭৫ শতাংশের বেশি ভোট পেয়ে উপনির্বাচনে জয়ী হয়েছেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম। আর এর সঙ্গেই কলকাতা পুরসভার ৮২ নম্বর ওয়ার্ড নিজেদের দখলে রাখল তৃণমূল। মোট ২২ হাজার ভোটের মধ্যে ফিরহাদ পেয়েছেন ১৬ হাজার ৫৬৪ ভোট। ১৩ হাজার ৯৮৭ ভোটের ব্যবধানে জিতেছেন তিনি। যা গত বারের ব্যবধানের তুলনায় দ্বিগুণেরও বেশি।

অন্য দিকে, ২ হাজার ৫৭৭ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন বিজেপির জীবনকুমার সেন। সিপিআই প্রার্থী শিশিরকুমার দত্ত পেয়েছেন ১ হাজার ৭৩৫ ভোট। কংগ্রেস প্রার্থী পেয়েছেন ৫৩৭ ভোট।

বুধবার সকালেই আলিপুর ট্রেজারি বিল্ডিংয়ের বাইরে হাজির হয়েছিলেন ফিরহাদের অনুগামীরা। ভোটের ফল প্রকাশিত হতেই উল্লাসে ফেটে পড়েন তাঁরা। চলে আবির খেলা। ফিরহাদের অনুগামীরা জানান, মেয়র যে ভোটে জিতবেন সে বিষয়ে নিশ্চিত ছিলেন তাঁরা। তবে তাঁদের প্রিয় মানুষটি ১৮ হাজার ভোটের ব্যবধানে জিতবেন বলে আশা করেছিলেন। এক অনুগামী বলেন, “ফিরহাদ নিজের বিকল্প নিজেই। তিনি নিজে রেকর্ড গড়েন। আবার সেই রেকর্ড নিজেই ভাঙেন।”

 

 

আরও পড়ুন: মতুয়া মহাসঙ্ঘকে প্রয়াগে আমন্ত্রণ আদিত্যনাথের

আরও পড়ুন: হিন্দি বলয়ে হারের পর প্রশ্ন নিয়েই সায় উচ্চবর্ণের সংরক্ষণ বিলে

ভোটের ফল প্রকাশের কিছু ক্ষণের মধ্যে আলিপুর ট্রেজারিতে পৌঁছন ফিরহাদ। এই জয়ে উচ্ছ্বসিত তিনিও। ফিরহাদ বলেন, “প্রথম থেকেই বলেছিলাম এই নির্বাচনে জিতব। চেতলার মানুষের ভালবাসা যে আমার সঙ্গে রয়েছে সেটাই আবার প্রমাণিত হল।” জানান, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আশীর্বাদে এই জয় পেয়েছেন তিনি। মানুষ মমতার উন্নয়নকে সমর্থন করে। আর সেই সমর্থনের জন্যই এই জয় এসেছে বলেই জানান মেয়র।

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

তৃণমূলের প্রতি যে মানুষের আত্মবিশ্বাস বাড়ছে উপনির্বাচনে জয়ের পর সে কথাই জানিয়েছেন মেয়র। এই নির্বাচনে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে বিজেপি। এ প্রসঙ্গে মেয়রকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, “যেহেতু কেন্দ্রে আছে তাই লাফালাফি করছে বিজেপি। বিলুপ্ত হয়ে যাবে ওরা।”

(শহরের সেরা খবর, শহরের ব্রেকিং নিউজজানতে এবং নিজেদের আপডেটেড রাখতে আমাদের কলকাতা বিভাগ পড়ুন।)