চিকিৎসার প্রয়োজনে বাংলাদেশ থেকে ভারতে এসেছিলেন। থাকছিলেন নিউটাউন এলাকায় এক ভাড়াবাড়িতে। অভিযোগ, বাংলাদেশি নাগরিক বলে তাঁর কাছে এলাকার কিছু যুবক টাকা দাবি করে। সেই টাকা না দিতে চাওয়ায় বাসুদেব মণ্ডল নামে ওই বাংলাদেশি যুবককে বেধড়ক মারধর করার পাশাপাশি তাঁর কাছ থেকে টাকা কেড়ে নেওয়ার অভিযোগও উঠল। নিউটাউন থানার পুলিশ ইতিমধ্যেই দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, বাংলাদেশের খুলনার বাসিন্দা বাসুদেব মণ্ডল চিকিৎসার জন্য এসেছিলেন এ দেশে। তিনি শুলংগুড়ি এলাকায় একটি বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকছিলেন। অভিযোগ, গত ২২ জুলাই রাত ১০টা নাগাদ প্রয়োজনীয় কয়েকটি জিনিস কিনতে তিনি পাশের মৃধা বাজারে যান। সেখানেই তাঁর পথ আটকায় কয়েক জন স্থানীয় যুবক। নিউটাউন থানায় করা অভিযোগে বাসুদেব জানিয়েছেন, ওই যুবকরা প্রথমে তাঁর পরিচয় জানতে চান। নিজের পরিচয় দিয়ে তিনি তাঁদের জানান, চিকিৎসার জন্য ভারতে এসেছেন। অভিযোগ, ওই যুবকরা এর পরই তাঁর কাছে টাকা দাবি করে। বলেন, বাংলাদেশি কেউ ওই এলাকায় থাকতে গেলে টাকা দিতে হবে।

আরও পড়ুন: ভর্তির বদলে মিলছে তারিখ, পচনের মুখে যুবকের পা

বাসুদেব পুলিশকে জানিয়েছেন, তিনি টাকা দিতে অস্বীকার করেন। তার পরেই ওই যুবকদের সঙ্গে তাঁর বচসা শুরু হয়ে যায়। ওই যুবকরা তাঁর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে মারধর করা শুরু করে। অভিযোগ, মারধর করার পর তাঁর পকেট থেকে টাকার ব্যাগ কেড়ে নেওয়া হয়। ওই ব্যাগে ২০ হাজার টাকা ছিল বলে দাবি বাসুদেবের। সেই টাকা ওই যুবকরা ছিনতাই করে নিয়ে পালায়।

আহত বাসুদেবকে ওই রাতেই ভর্তি করা হয় বিধাননগর মহকুমা হাসপাতালে। গত ২৪ জুলাই তিনি হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে নিউটাউন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ সূত্রে খবর, বাসুদেবের কাছ থেকে পাওয়া বর্ণনা মিলিয়ে ওই এলাকায় গিয়ে পাঁচ যুবককে চিহ্নিত করা হয়। কিন্তু তখন তাঁরা এলাকায় ছিলেন না। পরে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে মঙ্গলবার রাতে পুলিশ সঞ্জয় হালদার ওরফে ট্যাম বাবু এবং সুমন সরকার নামে দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চলছে।

আরও পড়ুন: নেতাজিনগরে নিঃসন্তান বৃদ্ধ দম্পতির রহস্যমৃত্যু, সম্পত্তির কারণে কি খুন? ধন্দে পুলিশ