Advertisement
০৪ মার্চ ২০২৪
NEET UG

চলতি বছরের নিট ইউজি-র রেজিস্ট্রেশন শুরু করল এনটিএ, আনা হল বেশ কিছু পরিবর্তনও

ইউজিকে শুধু এমবিবিএস কোর্স নয়, ডাক্তারির বিডিএস-সহ অন্যান্য স্নাতকস্তরের কোর্সে ভর্তির প্রবেশিকা বলে গণ্য করা হয়।N

নিট ইউজি-র রেজিস্ট্রেশন শুরু করল এনটিএ।

নিট ইউজি-র রেজিস্ট্রেশন শুরু করল এনটিএ। প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৮ মার্চ ২০২৩ ১৭:১৯
Share: Save:

আগেই জানানো হয়েছিল চলতি বছরে ডাক্তারির স্নাতকে ভর্তির পরীক্ষা (নিট ইউজি)-র রেজিস্ট্রেশন দ্রুত শুরু করা হবে। সেই মতোই সোমবার থেকে শুরু হয়ে গিয়েছে পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন। সোমবার এনটিএ (ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি)-র তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে এমনটাই জানানো হয়েছে। এ বছর পরীক্ষার আবেদনমূল্য-সহ বেশ কিছু বিষয়ে পরিবর্তন এনেছে এনটিএ। পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত ওয়েবসাইট neet.nta.nic.in -এ গিয়ে পরীক্ষার্থীরা এই সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিটি দেখতে পারবেন এবং পরীক্ষার জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

আগামী ৭ মে দেশের ৪৮৫টি পরীক্ষা কেন্দ্রে নিট (ন্যাশনাল এন্ট্রান্স কাম এলিজিবিলিটি টেস্ট) ইউজি-র আয়োজন করবে এনটিএ। পরীক্ষার জন্য রেজিস্ট্রেশন করা যাবে আগামী ৬ এপ্রিল রাত ৯টার মধ্যে। পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত ওয়েবসাইটে গিয়ে পরীক্ষার্থীদের সমস্ত তথ্য পূরণ করে আবেদন জানাতে হবে। রেজিস্ট্রেশনের সময় আপলোড করতে হবে সমস্ত প্রয়োজনীয় নথিও।

নিট ইউজিকে শুধু এমবিবিএস কোর্স নয়, ডাক্তারির বিডিএস-সহ অন্যান্য স্নাতক কোর্সে ভর্তির প্রবেশিকা বলে গণ্য করা হয়। পরীক্ষাটি এ বছরও ‘পেন অ্যান্ড পেপার’ অর্থাৎ লিখিত পদ্ধতিতে নেওয়া হবে, কম্পিউটারের মাধ্যমে নয়। পরীক্ষায় থাকবে ২০০টি প্রশ্ন এবং সময় থাকবে ৩ ঘন্টা ২০ মিনিট। এই বছর পরীক্ষা হবে দুপুর ২টো থেকে বিকেল ৫টা ২০ মিনিট পর্যন্ত।

চলতি বছরের পরীক্ষায় যে বড়সড় পরিবর্তনগুলি আনা হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে পরীক্ষার আবেদনমূল্য। এই বছর সমস্ত ক্যাটেগরিভুক্ত প্রার্থীদের জন্যই পরীক্ষার অ্যাপ্লিকেশন ফি বাড়ানো হয়েছে। দেশের জেনারেল, অর্থনৈতিক ভাবে পিছিয়ে পড়া/ওবিসি-এনসিএল এবং এসসি/এসটি/ বিশেষ ভাবে সক্ষম/ তৃতীয় লিঙ্গের ক্যাটেগরিভুক্ত প্রার্থীদের আবেদনমূল্য হয়েছে যথাক্রমে ১,৭০০ টাকা, ১,৬০০ টাকা এবং ১,০০০ টাকা। এ ছাড়া, দেশের বাইরের পরীক্ষার্থীদের আবেদনমূল্য হিসাবে দিতে হবে ৯,৫০০ টাকা।

আবেদনমূল্য ছাড়া এই বছর দেশে পরীক্ষাকেন্দ্রের সংখ্যা কমিয়ে ৪৮৫ টি করা হয়েছে, যা গত বছর ছিল ৫৪৩টি। তবে দেশের বাইরের ১৪টি পরীক্ষাকেন্দ্রের সংখ্যা অপরিবর্তিতই রয়েছে।

এ ছাড়া, পরিবর্তন আনা হয়েছে একই প্রাপ্ত নম্বরের ক্ষেত্রে অর্থাৎ ‘টাই ব্রেকিং’-এর নিয়মেও। প্রাপ্ত নম্বর এক হলে আগে পরীক্ষার্থীদের জন্মতারিখ এবং অ্যাপ্লিকেশন নম্বরের ভিত্তিতে অগ্রাধিকার দেওয়া হতো। এই বছর সেই নিয়মে পরিবর্তন এনে বিভিন্ন বিষয়ে সর্বোচ্চ নম্বর এবং যত কম চেষ্টায় নির্ভুল উত্তর দিয়েছেন পরীক্ষার্থীরা, তার ভিত্তিতে পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ‘টাই ব্রেকিং’ করা হবে।

এই বছর পরীক্ষা হবে ইংরেজি, হিন্দি, অহমিয়া, বাংলা, গুজরাতি, কন্নড়, মালায়ালম, মরাঠি, ওড়িয়া, পঞ্জাবি, তামিল, তেলুগু এবং উর্দু-সহ মোট ১৩টি ভাষায়।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE