×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ জুন ২০২১ ই-পেপার

Bengal Polls: ভোটেও তারার মেজাজ

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০২ এপ্রিল ২০২১ ০৬:০২
তারকা প্রার্থী: দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে সোহম চক্রবর্তী, সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় ও হিরণ চট্টোপাধ্যায়।

তারকা প্রার্থী: দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে সোহম চক্রবর্তী, সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় ও হিরণ চট্টোপাধ্যায়।
ছবি: কিংশুক আইচ, অভিজিৎ সিংহ ও নিজস্ব চিত্র

সিনেমায় তাঁরা তারা। এ বার তাঁরা প্রার্থীও। প্রচারে ছিল হাসিমুখ। ভোটের দিন নানা মেজাজে ধরা দিলেন তিন তারা।

বাংলা ছবির ‘চকোলেট বয়’ তিনি। গুন্ডা-দুষ্কৃতীদের পিটিয়ে ঠান্ডা মাথায় শায়েস্তা করতেও সিদ্ধহস্ত। কিন্তু দ্বিতীয় দফার ভোটে বাধার মুখে পড়ে মেজাজ হারাতে দেখা গেল পূর্ব মেদিনীপুরের চণ্ডীপুরের তৃণমূলের তারকা-প্রার্থী সোহম চক্রবর্তীকে। তবে আহত বিজেপি কর্মীকে শুশ্রুষা করতেও দেখা গিয়েছে তাঁকে। বাঁকুড়া শহরে ভিক্ষুকদের টাকা দিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছেন তৃণমূল প্রার্থী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি, বিরোধী প্রার্থীর সঙ্গে হাত মিলিয়ে ‘সৌজন্য’ দেখিয়েছেন খড়্গপুর সদরের গেরুয়া প্রার্থী হিরণ চট্টোপাধ্যায়।

বৃহস্পতিবার সকালে ভগবানপুরে পশ্চিমবাড়ে পৌঁছলে বিজেপি কর্মীরা সোহমকে দেখে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দেন। ৩০ নম্বর মহম্মদপুর বুথে এজেন্ট বসাতে গেলে বিজেপি কর্মীরা তাঁকে হেনস্থা করেন, কেন্দ্রীয় বাহিনী ও রাজ্য পুলিশ সহযোগিতা করেনি বলে অভিযোগ। দেড়েদিঘিতে একাধিক বিজেপি কর্মীকে মারধর, মাথা ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। সেখানে আহত বিজেপি কর্মীর মাথায় জল দিয়ে শুশ্রুষা করতেও দেখা যায় তৃণমূল প্রার্থীকে। যদিও সোহমের দাবি, হামলায় তৃণমূল জড়িত নয়। বেলা সওয়া ১২টা নাগাদ পশ্চিমবাড়ে ফের কেন্দ্রীয় বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে এজেন্ট বসাতে যান তৃণমূল প্রার্থী। বহিরাগত এজেন্ট করা যাবে না বলে আপত্তি জানান এক বিজেপি কর্মী। বাড়ে উত্তেজনা। সোহমের নিরাপত্তারক্ষী গুলি চালানোর হুমকি দেন বলে অভিযোগ। সোহম বলছিলেন, ‘‘কেন্দ্রীয় বাহিনী ও পুলিশের সামনেই হেনস্থা করা হয়। এক বিজেপির দুষ্কৃতী হুমকি দিচ্ছিল। তাই আমার নিরাপত্তারক্ষী তাকে আটকে রাখে।’’ চণ্ডীপুরের বিজেপি প্রার্থী পুলককান্তি গুড়িয়া বলেন, ‘‘এক কর্মীকে প্রার্থীর নিরাপত্তারক্ষী ও তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা মারধর করেছে।’’

Advertisement

এ দিন রেলশহরের চাঁদনিচক দুর্গামন্দিরে পুজো দিয়ে হিরো হিরণ চলে যান তালবাগিচায়। দিনভরই ঘুরেছেন শেষবেলায় নিমপুরার কুষ্ঠ কলোনি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বুথে সদলবদলে ঢুকে পড়েন হিরণ। পৌঁছন প্রতিদ্বন্দ্বী তৃণমূলপ্রার্থী প্রদীপ সরকারও। করমর্দন করেন দুই যুযুধান।

বাঁকুড়ার তৃণমূল প্রার্থী সায়ন্তিকার বিরুদ্ধে টাকা বিলির অভিযোগ তুলেছেন বিজেপি প্রার্থী নীলাদ্রিশেখর দানা। সকালে ভৈরবস্থান মন্দিরে পুজো দিয়ে বেরিয়ে সায়ন্তিকা ভিক্ষুকদের টাকা দেন। নীলাদ্রিশেখরের দাবি, “ভোটের দিন জনসমক্ষে টাকা বিলি করেছেন। জেলা প্রশাসনে অভিযোগ জানিয়েছি।” সায়ন্তিকার সাফাই, ‘‘প্রণামীর টাকা ভিক্ষুকদের দিয়েছি।”

তথ্য সহায়তা: গোপাল পাত্র, দেবমাল্য বাগচী ও রাজদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়

Advertisement