×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

নিজের ছবি পোস্ট করে ট্রোলড হলেন সোহম!

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৩:৩৫
সোহম মুখ না খুললেও  ভক্তেরা সোশ্যাল মিডিয়াতেই এক হাত নিয়েছেন তাঁকে। ছবি:সোশ্যাল মিডিয়া।

সোহম মুখ না খুললেও ভক্তেরা সোশ্যাল মিডিয়াতেই এক হাত নিয়েছেন তাঁকে। ছবি:সোশ্যাল মিডিয়া।

সেলেবদের বুলিং যেন হালফিলের ট্রেন্ড! নিজেদের মর্জি মতো কিছু পোস্ট করলেই বুলিং, ট্রোলিংয়ের শিকার হচ্ছেন তাঁরা। মীর, নুসরত জাহানের পর এই তালিকায় অভিনেতা-রাজনীতিবিদ সোহম চক্রবর্তী। গতকাল তিনি তাঁর পেজে নিজের একটি পুরনো ছবি পোস্ট করেন। লন্ডনে, টেমস নদীর ধারে তোলা সেই ছবিতে সোহম স্মার্ট কালো হুডওয়ালা জ্যাকেট, টি-শার্ট, ডেনিমে।

ছবি পোস্টের কিছুক্ষণের মধ্যে শুরু ট্রোলিং। এক বাংলাদেশী অনুরাগীর সপাট মন্তব্য, ‘‘আমার মুখ আপনার থেকেও সুন্দর। তবু আমি নায়ক হওয়ার সুযোগ পাইনি!’’ সোহম মুখ না খুললেও বাকি ভক্তেরা সোশ্যাল মিডিয়াতেই এক হাত নিয়েছেন তাঁকে। কেউ ঠাট্টা করে বলেছেন, ‘‘আপনার সুন্দর মুখটা খুব দেখতে ইচ্ছে করছে!’’

আরেক অনুরাগীর যুক্তি, ‘‘শুধু সুন্দর হলেই অভিনয়ের সুযোগ মেলে না। বাংলাদেশকে দেখে শিখুন!’’ কারোর মতে, ‘‘প্রতিভা থাকলে আলমও হিরো হয়ে যায়, এখানে মুখের এর সঙ্গে কোনও সাথ নেই। আপনার ট্যালেন্ট থাকলে আপনিও পারবেন।বাংলাদেশের হিরো আলম কে দেখে কিছু শিখুন।’’

Advertisement

কিছুদিন আগেই পাঞ্জাবি-জ্যাকেট পরে এক বিজ্ঞাপনী প্রচারের শুটের ছবি পোস্ট করেছিলেন অভিনেতা-সঞ্চালক মীর। ক্যাপশনে ‘পুজোর মুডে ঢুকছে দেখ কে?’ কথাটি লিখতেই রুষ্ট মৌলবাদীরা। এক জন মুসলিম কেন হিন্দুদের ধর্ম নিয়ে মাতামাতি করবে! প্রশ্ন তাদের।



টালিগঞ্জ সূত্রে খবর, কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন সোহম। ফাইল চিত্র।

আরও পড়ুন: জন্মদিনের আগে মুখোমুখি প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়

সেই সময়েই দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানতে চাওয়া হয়েছিল কেন ইদানিং ট্রোলড হচ্ছেন সেলেবরা? পাবলিক ফিগার বলে? মীরের যুক্তি, ‘‘আগে তারকারা ধরাছোঁয়ার মধ্যে থাকতেন না। সোশ্যাল মিডিয়াও ছিল না, যার সৌজন্যে খুব সহজেই এখন পৌঁছে যাওয়া যায় সবার কাছে। মত প্রকাশ করা যায় ইচ্ছেমতো। শুধু তারকা নন, এখন সাধারণ মানুষও ফি-দিন এ ভাবেই হেনস্থার শিকার।“

আরও পড়ুন: সত্যজিৎ রায়ের গল্প নিয়ে সৃজিতের সিরিজে শ্বেতা বসু-আলি ফজল?

পাশাপাশি, টালিগঞ্জ সূত্রে খবর, কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন সোহম। বেশ কিছুদিন ধরেই নাকি তাঁর শরীরে মৃদু উপসর্গ দেখা দিয়েছিল। তাই নিয়েই নিরাপত্তার সমস্ত নির্দেশিকা মেনে কাজ করছিলেন। করোনা টেস্টও করান। রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই তাঁকে ভর্তি করা হয়েছে বেসরকারি হাসপাতালে। তবে তাঁর স্ত্রী আর দুই সন্তান কোভিড নেগেটিভ।

এর আগেও টলিউডের একাধিক কলা-কুশলী কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সংক্রমিত হয়েছিলেন রঞ্জিত মল্লিক, কোয়েল মল্লিক, নিশপাল সিং রানে, পরিচালক রাজ চক্রবর্তী। এঁরা প্রত্যেকেই করোনা জয় করে সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

Advertisement