Advertisement
২৯ জানুয়ারি ২০২৩
Hacking

এমসের পর তামিলনাড়ুর বেসরকারি হাসপাতালে হ্যাকার-হানা! দেড় লক্ষ রোগীর তথ্য বিক্রি?

অভিযোগ, হাসপাতালের রোগীদের বহু ব্যক্তিগত তথ্য অনলাইনে বিক্রি করে দিয়েছেন হ্যাকারেরা। প্রতি রোগীর তথ্যপিছু ১০০ ডলার বা ভারতীয় মুদ্রায় ৮ হাজার টাকার বেশি দর চাওয়া হয়েছিল বলেও অভিযোগ।

তামিলনাড়ুর একটি বেসরকারি হাসপাতালের দেড় লক্ষ রোগীর তথ্য হাতিয়ে নিয়ে বিক্রি করে দিয়েছেন হ্যাকারেরা। এমন অভিযোগ করেছেন এক সাইবার সুরক্ষা প্রদানকারী সংস্থা।

তামিলনাড়ুর একটি বেসরকারি হাসপাতালের দেড় লক্ষ রোগীর তথ্য হাতিয়ে নিয়ে বিক্রি করে দিয়েছেন হ্যাকারেরা। এমন অভিযোগ করেছেন এক সাইবার সুরক্ষা প্রদানকারী সংস্থা। প্রতীকী ছবি।

সংবাদ সংস্থা
তিরুঅনন্তপুরম শেষ আপডেট: ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ ১৮:১৬
Share: Save:

দিল্লির এমসের পর এ বার তামিলনাড়ুর একটি বেসরকারি হাসপাতালের সার্ভারে হ্যাকার-হানার অভিযোগ উঠল। ওই নামী হাসপাতালের অন্তত দেড় লক্ষ রোগীর তথ্য অনলাইনে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ।

Advertisement

তামিলনাড়ুর শ্রী সরণ মেডিক্যাল সেন্টার নামে একটি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের প্রায় দেড় লক্ষ রোগীর তথ্য ডার্ক ওয়েবের মাধ্যমে অপরাধীদের কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। এই অভিযোগ করেছে সাইবার হানাদারদের উপর নজরদারি করা সংস্থা ক্লাউডসিক। সংস্থাটি জানিয়েছে, ওই হাসপাতালের রোগীদের তথ্য রাখতে যে ভেন্ডরের সার্ভার ব্যবহার করা হয়, তাতে হ্যাকিং করা হয়েছে। রোগীদের নাম-ঠিকানা, জন্ম তারিখ, অভিভাবক এবং চিকিৎসকের নাম বিক্রি করে দিয়েছেন হ্যাকারেরা। সে জন্য অনলাইনে বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন তাঁরা। তথ্যভান্ডার থেকে প্রতি রোগীর তথ্যপিছু ১০০ ডলার বা ভারতীয় মুদ্রায় ৮ হাজার টাকার বেশি দর চাওয়া হয়েছিল বলেও অভিযোগ।

ক্লাউডসিকের আরও দাবি, যাঁরা রোগীর তথ্যভান্ডারের একমাত্র মালিক হতে চান, তাঁদের জন্য সে দর বাড়িয়ে ৩০০ ডলার বা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় সাড়ে ২৪ হাজার টাকা করা হয়েছে। এমনকি, ওই তথ্য পুনরায় বিক্রি করলে তার দাম বাড়িয়ে সাড়ে ৩২ হাজার টাকার কাছাকাছি হবে বলেও অনলাইনে বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন হ্যাকারেরা। যদিও এই বিষয়ে ওই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

প্রসঙ্গত, এমসের ৫টি সার্ভারে সাইবার হানার অভিযোগ উঠেছে। সূত্রের দাবি, এমসে চিকিৎসা করিয়েছেন এমন ভিভিআইপি-সহ বহু রাজনীতিকের তথ্য হাতিয়ে নিয়ে তা ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করে দিয়েছেন চিনের হ্যাকারেরা। যদিও হ্যাকিংয়ের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এমস কর্তৃপক্ষ।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.