• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সোশ্যাল মিডিয়ায় সুন্দর ছবির পিছনের রহস্য সামনে আনলেন ইনস্টাগ্রাম ইনফ্লুয়েন্সার

Instagram
রিয়ান মেইজার। ছবি: ইনস্টাগ্রাম থেকে নেওয়া।

ইন্টারনেট, সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনও ছবি, বিশেষ করে ইনফ্লুয়েন্সারদের, যেমন দেখায় তা যে সব সময় তেমন দেখতে হয় না, তা প্রায় সবাই জানেন। আসলে সেই সব ছবিকে কেমন ভাবে সামনে আনা হয় তা তুলে ধরলেন এক ইনস্টগ্রাম ইনফ্লুয়েন্সার। তিনি তাঁর সুন্দর করে তোলা ছবি এবং ‘কারসাজি’ ছাড়া ক্যামেরাবন্দি ছবি পাশাপাশি পোস্ট করলেন। একটি নয় একাধিক এমন ছবি রয়েছে তাঁর ইনস্টা হ্যান্ডলে।

নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডামের বাসিন্দা রিয়ান মেইজার। ইনস্টাগ্রামে তাঁর ফলোয়ারের সংখ্যা প্রায় সাত লাখ। নিয়মিত তাঁর এবং প্রিয়জনদের ছবি পোস্ট করেন। সুন্দর সুন্দর সেই ছবিতে লাইক, কমেন্টের সংখ্যাও কম হয় না। সেই ছবির পাশাপাশি তিনি দেখিয়েছেন, লাইট, ক্যামেরা, এডিটিংয়ের সাহায্য ছাড়া যদি ছবিগুলি তুলে পোস্ট করা হত তবে কেমন দেখাত।

বছর ছাব্বিশের রিয়ানের এমন অনেক পোস্ট রয়েছে যেখানে এক দিকে দেখা যাচ্ছে, টান টান চেহারা, সাজানো গোছানো চুল, পোশাক সব কিছু যেন নিখুঁত, পরিপাটি। আর তার পাশেই দেখা যাচ্ছে, সাধারণ ভাবে তোলা তাঁরই কিছু ছবি। যেগুলিকে দেখলে আর পাঁচ জন সাধারণ মানুষের মতোই লাগছে।

আরও পড়ুন: ১৩০টি ফ্ল্যাটের বিল্ডিং কোয়রান্টিন সেন্টারের জন্য ছেড়ে দিলেন বিল্ডার

রিয়ানের একটি ছবিতে যেমন দেখা যাচ্ছে, চিবুকের নীচে মেদ জমেছে। অথচ পাশের ছবিতে সেই মেদ উধাও। এক্ষেত্রে যেমন ক্যামেরা অ্যাঙ্গল, লাইটিং বা এডিটিংয়ের সাহায্য নেওয়া হয়েছে। কোনও ছবিতে আবার তাঁর মুখ বেশ উজ্জ্বল বা গ্ল্যামারাস দেখাচ্ছে। আর পাশের ছবিতে সেই মুখেরই ছবি সাধারণ লাগছে। এক্ষেত্রে হয়তো আলো-ক্যামেরার কারসাজির পাশাপাশি কোনও ফটো-ফিল্টার ব্যবহার করা হয়েছে। কোথাও আবার তাঁর কোমরে মেদের উপস্থিতি চোখে পড়ছে। পাশের ছবিতেই দেখা যাচ্ছে সেখানে ঢেউ খালানো টানটান পেশির সমাবেশ। এ ক্ষেত্রেও ফটো এডিটিংয়ের সাহায্য নেওয়া হয়ে থাকতে পারে। রিয়ানের এই পোস্টগুলিও তাঁর ফলোয়াররা বেশ পছন্দ করেছেন।

আরও পড়ুন: বিমানের কয়েকশো টিকিট কেটে কোটিপতি হয়ে গেলেন মহিলা!

দেখুন সেই ছবি: 

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

Mood before working out vs. after working out 🤪🥦

A post shared by RIANNE MEIJER 🐶 (@rianne.meijer) on

 

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

My baby @vivianhoorn launched a beautiful swimwear collection with @hunkemoller this week ❤️ and when she asked me if I wanted to help her spread the message about body positivity, I said YES YES YES. I’ve been naturally skinny my whole life. Most of my years I was more worried about not eating enough instead of eating too much. I remember one day at school a girl shouted at me: are you anorexic or something??!! I’ll never forget that, that made me feel so insecure. At that time it felt like people would have no problem telling skinny people to go and eat a hamburger. That felt so unfair to me. All I wanted was to gain weight haha. As I got older the weight came naturally (also thanks to @royatiya 😛🍟) and honestly that was hard for me to accept as well. But in contrast to what most people think about social media, these platforms actually helped me love every corner and every shape of me. Sharing my unflattering pics with you guys has helped me loving myself so much! I don’t want to be an advocate for eating fries and pizza every day. I think good nutrition and exercise is the number one priority for loving your body, but that doesn’t mean all body’s aren’t beautiful, because they are❤️❤️ they all have a beautiful story. So here’s to me and you and our awesome body’s🥂🥦

A post shared by RIANNE MEIJER 🐶 (@rianne.meijer) on

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

1 minute on a chair without back support vs. 5 minutes

A post shared by RIANNE MEIJER 🐶 (@rianne.meijer) on

 

২০১৯ সালেই এক ইন্টারভিউয়ে রিয়ান জানিয়েছিলেন, তিনি দেখাতে চেষ্টা করেন, ইনস্টাগ্রামে ইনফ্লুয়েন্সার যে সুন্দর সুন্দর ছবি পোস্ট করেন, তা সব সময় সত্যি হয় না। তিনি নিজের ছবি দিয়েই তা তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন।

রিয়ানের আরও কিছু পোস্ট:

 

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন