অরুণাচলপ্রদেশকে ভারতের অংশ বলে দেখানো হয়েছে। স্বাধীন দেশ হিসাবে দেখানো হয়েছে তাইওয়ানকে। তার জেরে প্রায় ৩০ হাজার মানচিত্র নষ্ট করে দিল চিন। সে দেশের সংবাদমাধ্যম সূত্রে বিষয়টি সামনে এসেছে। সাম্প্রতিককালে দেশে এই ধরনের অভিযান চোখে পড়েনি বলে দাবি তাদের।

ভারতের অরুণাচলপ্রদেশকে দক্ষিণ তিব্বতের অংশ বলে বহুকাল ধরে দাবি করে আসছে চিন। তাইওয়ানকেও নিজেদের অংশ বলে দাবি করে তারা। তাই দেশের মানচিত্র তৈরির কারখানাগুলিতে কড়া নজরদারি চালানো হয়। তল্লাশি চালানো হয় বিভিন্ন বাজারেও। সে ভাবেই সম্প্রতি শাংদোং প্রদেশের চিংদাও শহরের একটি দফতরে হানা দেন সে দেশের শুল্ক দফতরের আধিকারিকরা। অরুণাচলকে ভারতের অংশ এবং তাইওয়ানকে স্বাধীন দেশ বলে দেখানো হয়েছে এমন ২৮ হাজার ৯০৮টি মানচিত্র বাজেয়াপ্ত করে পরে সেগুলি নষ্ট করে দেওয়া হয়।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ওই দফতরে শুল্ক দফতরের আধিকারিকরা হানা দেন বলে জানিয়েছে সে দেশের গ্লোবাল টাইমস সংবাদপত্র। তাদের দাবি, বাইরের কোনও দেশে পাঠানো হচ্ছিল ওই মানচিত্রগুলি। তবে তার আগেই সেগুলির নাগাল পেয়ে যান শুল্ক দফতরের আধিকারিকরা। মানচিত্রগুলি খুঁটিয়ে দেখে সেগুলিতে ভুল তথ্য রয়েছে বলে জানায় চিংদাও প্রশাসন। যার পর গোপন জায়গায় নিয়ে গিয়ে মানচিত্রগুলি নষ্ট করে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: ভোটের আগে পাকিস্তানে আরও একটা হামলা চালাতে পারে ভারত, মন্তব্য ইমরান খানের​

আরও পড়ুন: মেক্সিকো সীমান্তে দেওয়াল তুলতে ১০০ কোটি ডলার মঞ্জুর পেন্টাগনের

শুল্ক দফতরের এই পদক্ষেপে সমর্থন জানিয়েছেন প্রাকৃতিক সম্পদ বিভাগের মন্ত্রী মা উই। তিনি বলেন, “মানচিত্রে ভুল তথ্য থাকলে তা দেশের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতার পক্ষে খতিকর। ওই মানচিত্রগুলি তো আবার বিদেশে পাঠানো হচ্ছিল। তাতে আরও ক্ষতি হত।”আগেও একাধিকবার এমন পদক্ষেপ করেছে চিন। এমনকি, অরুণাচলে ভারতীয় নেতা-মন্ত্রীদের সফর নিয়েও প্রতিবাদ জানিয়েছে তারা।

(আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, আন্তর্জাতিক চুক্তি, আন্তর্জাতিক বিরোধ, আন্তর্জাতিক সংঘর্ষ- সব গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক খবর জানতে চোখ রাখুন আমাদের আন্তর্জাতিক বিভাগে।)