ইয়েমেনের যুদ্ধে আমেরিকার সক্রিয়তা বন্ধ করতে সর্বসম্মত প্রস্তাব পাশ হয়েছিল মার্কিন কংগ্রেসে। কিন্তু সেই প্রস্তাবে ভিটো দিয়েছেন স্বয়ং প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসের তরফে এ কথা জানানো হয়েছে। 

গত মার্চে সেনেটে এবং এপ্রিলে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস-এ প্রস্তাবটি পাশ হয়েছিল। এই প্রথম যুদ্ধ নিয়ে এমন একটি প্রস্তাব মার্কিন কংগ্রেসের দুই কক্ষে পাশ হয় যা অন্য কোনও দেশে অভিযানের সময়ে সেনা বাহিনী পাঠানোর ক্ষেত্রে প্রেসিডেন্টের ক্ষমতাকে খর্ব করে। আর তাতেই প্রবল আপত্তি জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট। এ নিয়ে কংগ্রেসের উদ্দেশে তাঁর বার্তায় ট্রাম্প বলেছেন, ‘‘এই প্রস্তাব অপ্রয়োজনীয় এবং আমার সাংবিধানিক কতৃত্ব খর্ব করার চেষ্টা। এতে আমেরিকার সাধারণ মানুষ আর সাহসী সেনা সদস্যদের জীবন বিপন্ন হবে।’’ প্রেসিডেন্টের ভিটোকে খারিজ করতে কংগ্রেসের দুই কক্ষেই দুই তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রয়োজন যা এক কথায় অসম্ভব বলেই মনে করা হচ্ছে। 

সৌদি আরবের নেতৃত্বে ইয়েমেনে হুথি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে প্রায় চার বছর ধরে লড়ছে মার্কিন সেনা। কিন্তু যৌথ বাহিনীর অভিযানে এত বছরে ইয়েমেনের প্রচুর সাধারণ মানুষের মৃত্যু নিয়ে সম্প্রতি উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রপুঞ্জ। গোটা ঘটনায় সৌদি সরকারের ভূমিকার কড়া নিন্দাও করে রাষ্ট্রপুঞ্জ। ইয়েমেন এখন কার্যত দুর্ভিক্ষের মুখ দাঁড়িয়ে। যুদ্ধে সাধারণ মানুষের মৃত্যু মিছিল বন্ধ করতেই মার্কিন কংগ্রেসে এই প্রস্তাব আনা হয়। যদিও মার্কিন সরকারের যুক্তি, হুথি জঙ্গিদের পিছনে ইরানের মদত রয়েছে, তাদের পুরোপুরি নিকেশ না করা পর্যন্ত ইয়েমেনের এই লড়াই থামানো সম্ভব নয়।