২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার সময় পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে আমন্ত্রণ জানিয়ে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার কূটনীতিতে নয়া নজির তৈরি করেছিলেন নরেন্দ্র মোদী। সেই পথেই হাঁটতে চলেছেন ইমরান খানও। শপথ অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ জানাতে পারেন তিনি। সে ক্ষেত্রে মোদীর পাশাপাশি সার্ক গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির রাষ্ট্রপ্রধানদেরও আমন্ত্রণ জানানো হবে। মঙ্গলবার দলের কোর কমিটির বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এমনটাই জানিয়েছেন ইমরানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) এক মুখপাত্র।

পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনে একক বৃহত্তম দল হিসেবে উঠে এসেছে ইমরানের পিটিআই। কিন্তু একাকী সরকার চালানোর মত সংখ্যাগরিষ্ঠতা এখনও আসেনি। ইমরান অবশ্য জানিয়েছেন, আগামী ১১ অগস্ট প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন তিনি।

এর আগে সোমবার মোদী ফোন করে শুভেচ্ছা জানান ইমরান খানকে। পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনে পিটিআই’য়ের জয়ের খবর আসার পরও প্রধানমন্ত্রী মোদী ইমরানকে ফোন করেন বলে নয়াদিল্লির বিদেশমন্ত্রক সূত্রে খবর। এবার মোদীকে আমন্ত্রণ জানানোর পরিকল্পনায় সৌজন্যের পাশাপাশি দুই দেশের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার পাল্টা বার্তা দিতে চাইলেন ইমরান, এমনটাই মনে করছে কূটনৈতিক মহল।

আরও পড়ুন: ইমরানকে ফোন মোদীর, ভারত-পাক সম্পর্কের উন্নতি নিয়ে কথা