পাকিস্তানের পেশোয়ারে অবস্থিত হিন্দুদের পঞ্জ তীর্থকে ‘জাতীয় ঐতিহ্য’ হিসেবে ঘোষণা করল পাক সরকার। পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়ার প্রশাসন সম্প্রতি এই ঘোষণা করেছে।

পাঁচটি বড় জলাশয় দিয়ে ঘেরা হিন্দুদের এই তীর্থস্থানটি। সেখান থেকেই ‘পঞ্জ তীর্থ’ নামটি এসেছে বলে মনে করা হয়। জলাশয় ছাড়াও সেখানে রয়েছে একটি মন্দির, দীর্ঘ একটি প্রাঙ্গণ ও সার সার গাছ। বর্তমানে ওই পাঁচ জলাশয়ের দায়িত্ব চাচা ইউনুস পার্ক ও পাখতুনখোয়া চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির উপর।

হিন্দুদের প্রচলিত বিশ্বাস অনুযায়ী, মহাভারতের চরিত্র তথা পাণ্ডবদের পিতা পান্ডু এখানেই থাকতেন। প্রতি কার্তিক মাসে এই জলাশয়ে স্নান হিন্দুদের কাছে অত্যন্ত পুণ্যকর্ম বলে মনে করা হয়। এ ছাড়া গাছের তলায় দু’দিন ধরে পুজো দেওয়ার রীতিও চালু আছে এখানে।

১৭৪৭ সালে আফগান দুরানিদের শাসন কালে এই মন্দিরের কিছু অংশ ভালই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সেই ঝাপটা সামলে ১৮০০ সালে স্থানীয় হিন্দুরা তা পুনরুদ্ধার করে ফের পুজো-অর্চনা শুরু করেন। এরপরে পাকিস্তান প্রশাসনের তরফে ঘোষণা করা হয় যে, কোনও ব্যক্তি বা সংগঠন এই মন্দিরের কোনও ক্ষতি করতে চাইলে কঠোর শাস্তির মুখে পড়তে হবে। হতে পারে ২০ লাখ টাকা জরিমানা ও পাঁচ বছরের জেলও।

আরও পড়ুন: ওজন না কমালে পদোন্নতি হবে না এই সংস্থায়!

আরও পড়ুন: ১০০ বছর ধরে পাকিস্তানের এক চার্চকে আগলে রয়েছেন এই মুসলিম পরিবার