পাগড়ি পরার জন্য এক যুবককে নিউ ইয়র্কের একটি রেস্তরাঁয় ঢুকতে দেওয়া হল না।ওই রেস্তরাঁর নাকি এমনই নিয়ম রয়েছে, তার কথা উল্লেখ করেই নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কর্মীরা ঢুকতে দেননি ওই শিখ যুবককে।

শনিবার রাতে বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরতে বেরিয়েছিলেন গুরবিন্দর গ্রেওয়াল। রাতে খাওয়ার জন্য তারা নিউ ইয়র্কেপোর্ট জেফারসনে হার্বার গ্রিল রেস্তরাঁতে যান। কিন্তু রেস্তরাঁয় নাকি নিয়ম রয়েছে মাথায় কিছু পরে ঢোকা যাবে না। সে কথা উল্লেখ করে রেস্তরাঁর নিরাপত্তা কর্মীরা বাধা দেন গুরবিন্দরকে।

ঘটনার পর প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে গুরবিন্দর জানিয়েছেন, আমি হতবাক, বিভ্রান্ত এবং বেদনাহত। কোনও দিন কোনও পরিষেবা পেতে বা কোথাও ঢোকার ক্ষেত্রে তাঁর পাগড়ি বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি।

গুরবিন্দর আরও জানিয়েছেন, তিনি রেস্তরাঁর ম্যানেজারের সঙ্গেও কথা বলেন। কিন্তু ম্যানেজার জানান রেস্তরাঁর তরফে এই নিয়ম রয়েছে, যেখানে শুক্রবার রাত দশটার পর ও শনিবার রাত্রে মাথায় কিছু পরে রেস্তরাঁয় ঢোকা যাবে না। যাতে তাঁরা রেস্তরাঁর ভেতর মানুষকে আরও ভাল ভাবে চিনতে পারেন। কোনও টুপিও পরে ঢুকতে দেওয়া হয় না। সব  ধর্মের মানুষের ক্ষেত্রেই এই নিয়ম প্রযোজ্য। বিষয়টি নিয়ে ১৭ মে একটি ফেসবুক পোস্টও দিয়েছে রেস্তরাঁটি। সেখানে বলা হয়েছে নিরাপত্তার খাতিরেই এই নীতি। তাঁরা ৮ বছর ধরে এটি মেনে চলছেন।

 

আরও পড়ুন : নিজের জন্মদিনে লাইফ জ্যাকেট পরে নদীতে ঝাঁপ

আরও পড়ুন : টার্মিনেটরকে উড়ে এসে লাথি মারল যুবক

আরও পড়ুন : অনলাইনে পাগড়ি বিক্রি করতে চেয়ে বিতর্কে গুচি

গুরবিন্দর গ্রেওয়াল জানিয়েছেন, পোর্ট জেফারসনের মেয়র তাঁর কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন এই ঘটনার জন্য।