হারানো পদ ফিরে পেলেন শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিঙ্ঘে। প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে তাঁকে যিনি বরখাস্ত করেছিলেন, রবিবার সেই প্রেসিডেন্ট মৈত্রীপালা সিরিসেনাই রনিলকে শপথ নেওয়ান শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে। গত ২৬ অক্টোবর বরখাস্ত হওয়ার পর ৫১ দিন ক্ষমতা থেকে দূরে ছিলেন রনিল।

পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকা সত্ত্বেও ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির নেতা রনিলকে একটি বিতর্কিত সিদ্ধান্তে বরখাস্ত করেন প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা। প্রধানমন্ত্রী পদে বসানো হয় মাহিন্দা রাজাপক্ষেকে। তার পর থেকেই দ্বীপরাষ্ট্রে রাজনৈতিক অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়।

তাঁকে অন্যায় ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে, এই অভিযোগে গত দু’মাস ধরেই সরব ছিলেন রনিল। শনিবার রাজাপক্ষে ইস্তফা দেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এ দিন শপথ নেওয়ানো হয় রনিলকে। তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যদের আগামী কাল, সোমবারই শপথ নেওয়ানো হবে বলে প্রেসিডেন্ট কার্যালয় সূত্রের খবর।

আরও পড়ুন- গেলেন মাহিন্দা, ফিরছেন রনিল ​

আরও পড়ুন- শ্রীলঙ্কায় অনাস্থা প্রস্তাবে পরাজয় রাজাপক্ষের, রনিলকেই স্বীকৃতি পার্লামেন্টের​

রনিলের দল ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির (ইউএনপি) সাজিথ প্রেমাদাসা জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্ট সিরিসেনার এই পদক্ষেপে তিনি মোটেই অবাক হননি। ‘‘এটাই ওঁর চরিত্র। নিজের সিদ্ধান্ত উনি নিজেই বদলালেন।’’

প্রেসিডেন্ট সিরিসেনার ‘দাক্ষিণ্যে’ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর রাজাপক্ষে চেয়েছিলেন ২২৫ সদস্যের পার্লামেন্টে তাঁর সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে। কিন্তু তিনি তা করতে না পারায়, সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার চাপে পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে আগামী ৫ জানুয়ারি দ্বীপরাষ্ট্রে অন্তর্বর্তীকালীন ভোট করাতে চেয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা। কিন্তু শ্রীলঙ্কার সুপ্রিম কোর্ট প্রেসিডেন্ট সিরিসেনার ওই সিদ্ধান্ত মানতে রাজি না হওয়ায় বরখাস্ত করা প্রধানমন্ত্রীকেই আবার শপথ নেওয়াতে হল সিরিসেনাকে।