ব্যাঙ্কের ঋণ মেটাতে চেয়ে দু’বছর আগে প্রধানমন্ত্রীকে লেখা তাঁর একটি চিঠি প্রকাশ্যে আনলেন বিজয় মাল্য। মঙ্গলবার ওই চিঠি প্রকাশ্যে এনে তাঁর অভিযোগ, তিনি স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে ব্যাঙ্কের দেনা মেটাতে ইচ্ছুক, তার জন্য তিনি চেষ্টাও করে যাচ্ছেন, অথচ তাঁর চিঠিকে গুরুত্ব না দিয়ে তাঁকেই ব্যাঙ্ক প্রতারণার ‘পোস্টার বয়’ করে তোলা হল। এমনই অভিযোগ বিজয় মাল্যের।

মাল্যর দাবি, ওই চিঠিটি তিনি ২০১৬ সালের ১৫ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং অর্থমন্ত্রীকে লিখেছিলেন। এতদিনেও তাঁদের তরফ থেকে কোনও সাড়া মেলেনি।

মাল্য জানান, তাঁর সংস্থা কিঙ্গফিশার এয়ারলাইন ৯,০০০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে চম্পট দিয়েছে বলে রাজনীতিকরা এবং সংবাদমাধ্যম তাঁকে লাগাতার নিশানা করছে। কিছু কিছু ব্যাঙ্ক তাঁকে স্বেচ্ছায় ঋণ অপরিশোধকারী তকমাও দিয়ে দিয়েছে। সরকার এবং সরকারি গোয়েন্দা সংস্থার থেকে পালিয়ে বেড়াতে বেড়াতে তিনি ক্লান্ত বলে বলে জানান মাল্য।

আরও পড়ুন: একমাত্র লক্ষ্য গাঁধী পরিবার, জরুরি অবস্থার স্মৃতি উস্কে নয়া ভোট-কৌশলে বিজেপি

বিজয় মাল্যর সেই চিঠি

বিজয় মাল্যের বিরুদ্ধে ব্যাঙ্ক প্রতারণার মামলা রয়েছে। তার জেরে ২০১৬ সালে থেকে তিনি দেশ ছাড়া।