স্ট্র্যাটোলঞ্চ। বিশ্বের সবথেকে বড় বিমান। শনিবার ক্যালিফোর্নিয়ার মরুভূমিতে মোজাবে এয়ার অ্যান্ড স্পেস পোর্ট থেকে প্রথমবারের জন্য পরীক্ষামূলকভাবে ওড়ানো হল তাকে। ডানার দৈর্ঘ্যের দিক থেকে বিচার করলে এটি বিশ্বের সবথেকে বড় বিমান। এর ডানার দৈর্ঘ্য একটি প্রমাণ সাইজের ফুটবল মাঠের থেকেও বড়।

২০১১ সালে মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা পল অ্যালেনের উদ্যোগে তৈরি হয় স্ট্র্যাটোলঞ্চ সিস্টেমস।সামরিক প্রয়োজন, বেসরকারিকোনও সংস্থাথেকে নাসা, কম খরচে মহাকাশে কার্যক্রম পরিচালনার সুযোগ করে দেয় স্ট্র্যাটোলঞ্চ।এরাই তৈরি করেছে বিশ্বের বৃহত্তম বিমানটি। ফুটবল মাঠের দৈর্ঘ্যের থেকেও বড় ডানা যুক্ত এই বিমানে রয়েছে ছ’টি ৭৪৭ জেট ইঞ্জিন ও ২৮টি চাকা।

তবে সাধারণ যাত্রী বহনের কাজে এটি ব্যবহৃত হবে না। মূলত, রকেট বহন করবে এই স্ট্র্যাটোলঞ্চ। মহাকাশে কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠানোর লঞ্চ প্যাড হিসেবে কাজ করছে এটি। মাটি থেকে ৩৫ হাজার ফুট ওপরে উঠে এটি থেকে ছাড়া হবে রকেট।এর জন্য ছোট আকারের কৃত্রিম উপগ্রহ উৎক্ষেপণ-সহ সামগ্রিক মহাকাশ অভিযান আরও সাশ্রয়ী হবে বলে দাবি করছেন বিশেষজ্ঞরা। 

স্ট্র্যাটোলঞ্চ আসলে কতটা বড়? মার্কিন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুসারে, স্ট্র্যাটোলঞ্চের ডানা লম্বায় প্রায় ৩৮৫ ফুট, উচ্চতা ৫০ ফুট। অর্থাৎ একটি ফুটবল মাঠের চেয়েও লম্বা এই বিমানের ডানা। জ্বালানির ট্যাঙ্ক খালি থাকা অবস্থায় এর ওজন পাঁচ লাখ পাউন্ড। প্রায় আড়াই লাখ পাউন্ড জ্বালানি বহনের ক্ষমতা রয়েছে এর। বিমানটিতে আছে মোট ২৮টি চাকা। আছে ছ’টি জেট ইঞ্জিন। বিমানটি এত বড় যে, এর ককপিট আছে দু’টি। এর ওজন প্রায় ২ লাখ ২৬ হাজার ৮০০ কেজি।গতকাল এটি সর্বোচ্চ ১৮৯ মাইল প্রতি ঘণ্টা গতিবেগে প্রায় আড়াই ঘণ্টা চক্কর কেটেছে আকাশে। 

আরও পড়ুন: স্পার্ম জালিয়াতি করে ৪৯ বাচ্চার বাবা হয়েছেন এক ডাক্তার