×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৩ মে ২০২১ ই-পেপার

শরীর সুস্থ রাখতে কোন হারানো অভ্যাস ফেরানো দরকার?

সুজাতা মুখোপাধ্যায়
কলকাতা ০৯ মার্চ ২০২১ ১৮:১১
রোজ ব্যায়াম করা জরুরি

রোজ ব্যায়াম করা জরুরি

করোনা-আতঙ্কও এখন জীবনের অঙ্গই। ফলে নতুন ভাবে একটা ছন্দ তৈরি হয়ে গিয়েছে। কিন্তু ব্যতিক্রম শুধু শরীরচর্চা৷ জিমে যেতে এখনও অনেকের ভয়। আর সেই ফাঁকে, প্রায় এক বছরের অনভ্যাসে শরীরে মরচে ধরতে বসেছে যে৷

শীত চলে গেলেও আলসেমি কাটছে না তো? এ সমস্যা এখন ঘরে ঘরে। জামা-জুতো গুছিয়ে, মুঠো ফোনে অ্যালার্ম দিয়ে ঘুমোতে যাওয়ার তোরজোর, সব ঠিক আছে৷ অ্যালার্মে ঘুমও ভাঙছে। কিন্তু তখনই মনে হচ্ছে আর একটু না ঘুমোলে সারা দিন টানা যাবে না৷ ফলে শরীরচর্চা বাদ দিয়ে একটু ঘুম। তার পরে দিনভর অপরাধবোধ৷

কিন্তু এতে হচ্ছে বড় ক্ষতি। চিকিৎসক সুকুমার মুখোপাধ্যায় জানালেন, এ ভাবে সময় যত নষ্ট করা হবে, তত কমজোর হতে থাকবে ফুসফুস-হাড়-পেশি৷ মোটাত্ব, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবিটিস, কোলেস্টেরল বেড়ে যাওয়ার মতো যাপন নির্ভর রোগ ততই পেয়ে বসবে। বাড়বে হৃদ্‌রোগের আশঙ্কা। ধীরে ধীরে কমে যাবে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। করোনার মরসুমে যা একেবারেই কোনও কাজের কথা নয়। ফলে করছি-করব না করে, শুরু করে দিতে হবে শরীরচর্চা বলেই পরামর্শ চিকিৎসকের।

Advertisement

কী ভাবে ফিরবেন ছন্দে?

প্রথম ৭-১০ দিন একটু কষ্ট করতেই হবে। খুব জোর খাটাতে হবে নিজের উপরে। কয়েক দিন সকালে উঠলে ক্লান্ত লাগতে পারে। কিন্তু ধীরে ধীরে ফিরবে অভ্যাস। ৩ সপ্তাহ পার করে দিতে পারলে তো কথাই নেই৷ কারণ, দেখা গিয়েছে, কোনও কাজ ৩ সপ্তাহ টানা করলেই তা অভ্যাসে পরিণত হয়৷ ব্যায়ামের ক্ষেত্রে আরও সুবিধে৷ নিয়ন্ত্রিত ব্যায়ামে শরীরে মন ভাল করা হরমোনের ক্ষরণ বাড়ে। যার ফলে মানসিক চাপ কমে। শরীর-মন ঝরঝরে হয়। ভাল ঘুম হয়। কিন্তু ব্যায়াম বন্ধ করে দিলে তা আবার আগের অবস্থায় ফিরে যায়। তাই চিকিৎসকদের বক্তব্য, এক বার ব্যায়াম শুরু করে দিলে আর তা বন্ধ করতে মন চায় না অধিকাংশেরই।

অর্থাৎ, হারানো অভ্যাসকে ফেরানো তত কঠিন নয়। বরং এর সঙ্গে ফিরতে পারে পুরনো মনটাও। যখন অনেকটা সময়ে আনন্দে থাকার অভ্যাস ছিল!

Advertisement