Advertisement
০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Bizzare

সাপলুডোয় শাপগ্রস্ত সংসার, বাজিতে হেরে বউ এখন পরের ঘরে, থানায় ছুটলেন অসহায় স্বামী

জুয়ার নেশায় ঘর ভাঙল মহিলার! জুয়ায় হেরে এখন বাড়িওয়ালার সঙ্গে সহবাস। অসহায় স্বামী ছুটলেন থানায়। ফিরে পেলেন কি স্ত্রীকে?

শেষমেশ নিজেকে নিয়েই বাড়িওয়ালার সঙ্গে বাজি ধরলেন উত্তরপ্রদেশের এক মহিলা।

শেষমেশ নিজেকে নিয়েই বাড়িওয়ালার সঙ্গে বাজি ধরলেন উত্তরপ্রদেশের এক মহিলা। গ্রাফিক: সনৎ সিংহ।

সংবাদ সংস্থা
বান্দা, উত্তরপ্রদেশ শেষ আপডেট: ০৫ ডিসেম্বর ২০২২ ১৯:১৫
Share: Save:

লুডো খেলার আসক্তিতে বিপাকে পড়লেন উত্তরপ্রদেশের প্রতাপগড়ের বাসিন্দা এক মহিলা। লুডো খেলার দারুণ নেশা অথচ বাজি ধরার টাকা নেই। তাই নিজেকেই বাজিতে লাগিয়ে দিলেন তিনি।

Advertisement

পুলিশ জানিয়েছে, রেণু নামে সেই মহিলার জুয়া খেলার অভ্যাস। মহিলার স্বামী রাজস্থানের জয়পুরে কর্মরত। সেখান থেকেই প্রতি মাসে সংসার খরচের টাকা পাঠান তিনি। স্ত্রীকে ফিরে পেতে সম্প্রতি থানায় যান সেই যুবক। তার পরে শুরু হয় ঘটনার তদন্ত।

স্বামীর অভিযোগ, বাড়িওয়ালার সঙ্গে নিয়মিত বসত তাঁর লুডো খেলার আসর। এক দিন ওই মহিলা তাঁর সব টাকাই লুডোয় লাগিয়ে দিলেন। অথচ সেই খেলায় তিনি হেরেও গেলেন। তাতেও মিটল না তাঁর আসক্তি! শেষমেশ নিজেকে নিয়েই বাড়িওয়ালার সঙ্গে বাজি ধরলেন মহিলা। শেষরক্ষাও হল না। হেরে গেলেন সেই বাজিও।

পুলিশ জানায়, পরে মহিলা নিজেই তাঁর স্বামীকে ঘটনাটি খুলে বলেন। তাঁর স্বামী প্রতাপগড়ে ফিরে এসে থানায় নিজের স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। সব ঘটনার বর্ণনা করে মহিলার স্বামী সমাজমাধ্যমের পাতায় একটি পোস্টও করেন। এখন সেই পোস্ট ভাইরাল!

Advertisement
স্বামীর অভিযোগ, বাড়িওয়ালার সঙ্গে নিয়মিত বসত তাঁর স্ত্রীর লুডো খেলার আসর।

স্বামীর অভিযোগ, বাড়িওয়ালার সঙ্গে নিয়মিত বসত তাঁর স্ত্রীর লুডো খেলার আসর। ছবি: শাটারস্টক।

পুলিশের কাছে সংসার ফিরিয়ে দেওয়ার কাতর আর্জি জানিয়ে রেণুর স্বামীর দাবি, তিনি দেবকালিতে একটি বাড়িতে স্ত্রীর সঙ্গে ভাড়া থাকতেন। তাঁদের দুই সন্তানও আছে। ছ’মাস আগে কাজের সূত্রে তিনি জয়পুরে যান। সেখান থেকে সংসার খরচের জন্য যে টাকা পাঠাতেন, তার সবটাই উড়ে যেত বৌয়ের জুয়ার নেশায়। স্বামীর আক্ষেপ, ‘‘শেষমেশ নিজেকেও ছাড়ল না ও!’’

রেণু এখন বাড়িওয়ালার সঙ্গেই থাকেন। তাঁর স্বামী পুলিশের কাছে গিয়ে বলেন, ‘‘আমি রেণুকে ফিরিয়ে আনার অনেক চেষ্টা করেছি। কিন্তু রেণু আমার সংসারে ফিরতে নারাজ।’’

পুলিশের দাবি, বাড়িওয়ালার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা চলছে। তাঁর সঙ্গে কথাবার্তা শুরু হলেই তদন্ত এগোবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.