বাড়িতে বসে সেরা সব রেস্তরাঁর খাবার খেতে অনলাইনের থেকে ভাল সুযোগ আর কোথায় মিলবে! তাই যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে কেরলের ভিয়ুর সেন্ট্রাল জেলে তৈরি বিরিয়ানি বিক্রি হচ্ছে অনলাইনে। অবাক হচ্ছেন? অবাক হওয়ার এখনও বাকি, বিরিয়ানির পরিমাণ ও দাম শুনলে চোখ কপালে উঠতে বাধ্য।

২০১১ সাল থেকেই এই জেলের বাসিন্দারা খাবার তৈরি করে বিক্রি করেন। শুরুটা হয়েছিল চাপাটি দিয়ে। আস্তে আস্তে তার সঙ্গে যোগ হয় বেকারির খাবার, আমিষ কারি। বেশ কিছুদিন হল তার সঙ্গে যোগ হয়েছে চিকেন বিরিয়ানি।

ভিয়ুর জেলের বিরিয়ানি এলাকার মানুষের খুব পছন্দের। তার দু’টি কারণ, প্রথমত এর স্বাদ যথেষ্ট ভাল বলে দাবি করেন স্থানীয়রা। দ্বিতীয়ত এর দাম অত্যন্ত কম। জেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রথমে তাঁরা চিকেন বিরিয়ানির একটি কম্বো অফার দিচ্ছে। এতে থাকছে ৩০০ গ্রাম বিরিয়ানি, একটি রোস্টেড চিকেন লেগপিস, ৩টি চাপাটি, একটি কাপ কেক, সালাড, আচার, এক লিটার জলের বোতল আর খাওয়ার জন্য একটি কলাপাতা। দাঁড়ান দাঁড়ান এখনও শেষ হয়নি চমক। কত হতে পারে এই কম্বো প্যাকের দাম? আপনার মনে যাই আসুক তার থেকে কমেই বিক্রি হয় এই বিরিয়ানি কম্বো প্যাক, মাত্র ১২৭ টাকায়!

আরও পড়ুন : রেলে প্রায় ৩ লক্ষ শূন্যপদে নিয়োগ প্রক্রিয়া চলছে, জানালেন মন্ত্রী

আরও পড়ুন : শরীর ঢেকে বিমানে উঠুন, মহিলা যাত্রীকে বললেন কর্মী!

জেলের কাউন্টার থেকেই প্রথমে সব খাবার বিক্রি হত। এমনকি একটি সংস্থার সঙ্গে চুক্তিও রয়েছে জেলের খাবার বিক্রির ক্ষেত্রে। পরে কেরলের ডিজিপি ঋষিরাজ সিংহ বলেন, এত জনপ্রিয় খাবার অনলাইনেই বা কেন বিক্রি হবে না। সেই পরিকল্পনা মতো বৃহস্পতিবার থেকে অনলাইনেও মিলছে জেলের সুস্বাদু, সস্তা, গরম গরম বিরিয়ানি।

অনলাইনে বিক্রি শুরু মানেই এই নয় যে, কাউন্টার থেকে বিক্রি বন্ধ হয়ে যাবে। জেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, কাউন্টার থেকে যেমন বিক্রি হত তেমনই হবে। বর্তমানে প্রতিদিন এই জেল থেকে ২৫ হাজার চাপাটি আর ৫০০ প্লেট বিরিয়ানি বিক্রি হয়। যা তৈরি করেন জেলের ১০০ জন আবাসিক।