কেরলের পাহাড়ি এলাকার পর্যটন শহর মুন্নার। রাতের অন্ধকারে সেখানকার জঙ্গলের পাশের রাস্তা দিয়ে সেখান ছুটে গেল একটি এসইউভি। গাড়িটি চলে যাওয়ার পরই দেখা গেল রাস্তার মধ্যিখানে এ দিক থেকে ও দিক হামাগুড়ি দিচ্ছে একটি শিশু।

গত শনিবার রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ স্থানীয় থানায় একটি ফোন আসে। ফোনের ওপার থেকে জানানো হয়, জঙ্গলের কাছে রাস্তার মাঝখানে একটি ছোট্ট বাচ্চা হামাগুড়ি দিয়ে বেড়াচ্ছে। এক ফরেস্ট অফিসার বাচ্চাটিকে হামাগুড়ি দিতে দেখে থানায় খবর দিয়েছিলেন। এর পর ১০টা নাগাদ থানার অফিসাররা ওই বাচ্চাটিকে উদ্ধার করেন ও তার মাথায় আঘাত ছিল। তার প্রাথমিক চিকিৎসাও করান। ওই থানার অফিসাররা পার্শ্ববর্তী থানাগুলিকেও রাস্তায় উদ্ধার হওয়া বাচ্চাটি সম্পর্কে জানান।

বাচ্চা পড়ে যাওয়ার ঘটনাটি ধরা পড়েছে সেখানে থাকা সিসিটিভিতে। সেই সিসিটিভি ফুটেজের ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় এসইউভি থেকে পড়ে যায় এক বছরের এই কন্যা শিশুটি। তার পরই রাস্তায় হামাগুড়ি দিতে থাকে সে। গাড়ি থেকে পড়ে গেলেও তাঁর বাড়ির লোক সে সময় বুঝতেই পারেননি।

এর পর জানা যায়, সেখান থেকে ছয় কিলোমিটার দূরে একটি থানায় বাচ্চা হারানোর ডায়েরি করা হয়েছে। তখন বাচ্চাটির অভিভাবকদের ফোন করে ডাকা হয় এবং তাঁদের হাতে বাচ্চাটিকে তুলে দেওয়া হয়।  জানা গিয়েছে, ওই পরিবার তামিলনাড়ুর একটি মন্দির থেকে পুজো দিয়ে ফিরছিল। ওই বাচ্চাটির একটি ভাই ও একটি বোনও রয়েছে। 

আরও পড়ুন: ওবামা ট্রাম্পের পরেই... টুইটারে মোদীকে ফলো করছেন পাঁচ কোটিরও বেশি ইউজার!

আরও পড়ুন: ৮৬,৫০০ টাকা জরিমানা! ৭০ হাজার দিয়ে লরি ফিরে পেলেন চালক