×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

মানুষের প্রতিরোধ ব্যবস্থার অজানা বহু প্রজাতির ব্যাক্টেরিয়ার হদিশ, শঙ্কা অতিমারির

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৮ মার্চ ২০২১ ১৬:৪০
প্রশান্ত মহাসাগরের ফিনিক্স দ্বীপপুঞ্জ, যেখানে পাওয়া গিয়েছে নতুন কয়েকটি প্রজাতির ব্যাকটিরিয়ার হদিশ। -ফাইল ছবি।

প্রশান্ত মহাসাগরের ফিনিক্স দ্বীপপুঞ্জ, যেখানে পাওয়া গিয়েছে নতুন কয়েকটি প্রজাতির ব্যাকটিরিয়ার হদিশ। -ফাইল ছবি।

প্রশান্ত মহাসাগরের ১ কিলোমিটারেরও বেশি গভীরে এমন বেশ কয়েকটি প্রজাতির ব্যাক্টেরিয়ার হদিশ মিলল মানুষের দেহের স্বাভাবিক প্রতিরোধ ব্যবস্থা যাদের আদৌ চেনে না। ফলে, এই সব প্রজাতির ব্যাক্টেরিয়ার দৌলতে আগামী দিনে কোভিডের মতো কোনও ভয়াবহ সংক্রমণ ঘটলে তা পৃথিবীতে ফের নতুন অতিমারির জন্ম দিতে পারে।

প্রশান্ত মহাসাগরের ফিনিক্স দ্বীপে ১ কিলোমিটারেরও বেশি গভীরতায় সদ্য হদিশ মেলা এই সব প্রজাতির ব্যাক্টেরিয়া কার্যত রোগ-প্রতিরোধ বিজ্ঞান (‘ইমিউনোলজি’)-র এত দিনের চালু মূল ধারণারই ভিত নাড়িয়ে দিল বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। রোগ-প্রতিরোধ বিজ্ঞান বলে, পৃথিবীতে এমন কোনও ব্যাক্টেরিয়া নেই মানুষের দেহের প্রতিরোধ ব্যবস্থা যাদের সামান্য হলেও চেনে না, জানে না। তার মানে, কোনও না কোনও কালে পৃথিবীর যে কোনও প্রজাতির ব্যাক্টেরিয়াই মানুষের মতো স্তন্যপায়ী প্রাণীদের দেহের প্রতিরোধ ব্যবস্থার সংস্পর্শে এসেছে। এই ভাবেই মানুষের দেহের স্বাভাবিক প্রতিরোধ ব্যবস্থার বিবর্তন হয়েছে।

গবেষকরা এই সদ্য আবিষ্কৃত প্রজাতির ব্যাক্টেরিয়াগুলির সন্ধান পেয়েছেন হাওয়াই দ্বীপের ১ হাজার ৬৫০ মাইল দক্ষিণ-পশ্চিমে, ফিনিক্স দ্বীপপুঞ্জের কিরিবাটি সংরক্ষিত এলাকা-সংলগ্ন প্রশান্ত মহাসাগরের ১ কিলোমিটারেরও বেশি গভীরতায়। গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান গবেষণা পত্রিকা ‘সায়েন্স ইমিউনোলজি’-তে।

Advertisement

অন্যতম গবেষক বস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের মেরিন ইকোলজিস্ট র‌্যান্ডি রোতজান বলেছেন, ‘‘প্রশান্ত মহাসাগরের ৪ হাজার মিটার বা ১৩ হাজার ১০০ ফুট গভীরতায় এই নতুন প্রজাতিদের ব্যাক্টেরিয়ার হদিশ মিলেছে। এই গভীরতায় স্থায়ী ভাবে কোনও স্তন্যপায়ী প্রাণীই থাকতে পারে না। থাকা সম্ভব নয় তাদের পক্ষে। জায়গাটা আবার নিরক্ষীয় রেখার নীচে। যেখানে কোনও তিমিও কোনও দিন যেতে পারে না। ফলে, কোনও জলজ স্তন্যপায়ী প্রাণীর দেহের প্রতিরোধ ব্যবস্থা এই নতুন নতুন প্রজাতির ব্যাক্টেরিয়াদের চেনা, জানার সুযোগ পায়নি। মানুষের প্রতিরোধ ব্যবস্থা তা হলে আর এদের চেনা, জানার সুযোগ পাবে কী ভাবে?’’



Tags:

Advertisement