• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বুমরার পাল্টা দিলেন কামিংস, ৩৪৬ রানে এগিয়ে রয়েছে ভারত

Bumrah and Kohli
বুমরাকে অভিনন্দন কোহালির। মেলবোর্নে শুক্রবার। ছবি: এএফপি।

Advertisement

জশপ্রীত বুমরার জবাব প্যাট কামিংসে। ছয় উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসে ভাঙন ধরিয়ে দিয়েছিলেন বুমরা। ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসে পাল্টা দিলেন কামিংস। ফলো-অন না করিয়ে ব্যাট করতে নেমে এখন রীতিমতো চাপে ভারত। দ্বিতীয় ইনিংসে পড়ে গিয়েছে চার উইকেট। পরপর ফিরেছেন হনুমা বিহারী (১৩), চেতেশ্বর পূজারা (০), অধিনায়ক বিরাট কোহালি (০) ও অজিঙ্ক রাহানে (১)। চারটি উইকেটই নিয়েছেন কামিংস। ৩২ রানে ভারতের চার উইকেট ফেলে দিয়ে ম্যাচে ফিরেছে অস্ট্রেলিয়া। জমে গিয়েছে বক্সিং ডে টেস্ট। 

তৃতীয় দিনের শেষে ৫৪ রানে পাঁচ উইকেট পড়েছে ভারত। ফিরে গিয়েছেন রোহিত শর্মাও (৫)। তাঁকে নেন জশ হেজেলউড। এখন ভারত ৩৪৬ রানে এগিয়ে। হাতে রয়েছে পাঁচ উইকেট। ফলে, ‘অ্যাডভান্টেজ ইন্ডিয়া’ লেখাই যায়। সিরিজ এখন ১-১ অবস্থায়। এই পিচে ব্যাটিং ক্রমশ কঠিন হয়ে উঠছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, চতুর্থ ইনিংসে রান তাড়া করতে নেমে আরও চাপে পড়বে অস্ট্রেলিয়া। 

ভারতীয় বোলিংয়ের নায়ক অবশ্যই জশপ্রীত বুমরা। মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্টে বুমরার বিধ্বংসী বোলিংয়েই ১৫১ রানে দাঁড়ি পড়ে গেল অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসে। ২৯২ রানের লিড পেল ভারত। ফলো-অন না করিয়ে ফের ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বিরাট কোহালি। কিন্তু, ভারতের ব্যাটিং দ্বিতীয় ইনিংসে কামিংসের আগুনে পেসের শিকার হল। তবে তার পরেও বর্ডার-গাওস্কর ট্রফির তৃতীয় টেস্টে চালকের আসনে ভারত।

বৃহস্পতিবার টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ৪৪৩ রানে ইনিংসের সমাপ্তি ঘোষণা করেছিল ভারত। জবাবে তৃতীয় দিনে বুমরার সামনে ধুঁকতে দেখা গেল অস্ট্রেলিয়াকে। জশপ্রীত বুমরার উদ্দীপ্ত বোলিংয়ের সামনে আত্মসমর্পণ করলেন অজি ব্যাটসম্যানরা। চলতি বছরেই দক্ষিণ আফ্রিকা ও ইংল্যান্ডে পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। এ বার নিলেন অস্ট্রেলিয়ায়। এটা তাঁর টেস্ট কেরিয়ারের তৃতীয় পাঁচ উইকেট। ৩৩ রানে ছয় উইকেটই এখনও পর্য়ন্ত তাঁর সেরা বোলিং।

আরও পড়ুন: ও’কিফের মুখের উপর যোগ্য জবাব শাস্ত্রীর​

আরও পড়ুন: ভারতের অস্ত্র এখন বুম বুম বুমরা ও রিভার্স সুইং​

মেলবোর্নে শুক্রবার সকালে বিনা উইকেটে আট নিয়ে শুরু করেছিল হোমটিম। প্রথমে ফেরেন ডানহাতি ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ (৮)। ইশান্ত শর্মার বলে শর্ট মিড উইকেটে তাঁর ক্যাচ দারুণ ভাবে নেন অভিষেককারী মায়াঙ্ক আগরওয়াল। আর এক ওপেনার মার্কাস হ্যারিসও (২১) বেশিক্ষণ থাকেননি। বুমরাকে হুক মারতে গিয়ে লং লেগে ইশান্তকে সহজ ক্যাচ দেন তিনি।৩৬ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে সেই যে চাপে পড়ে অস্ট্রেলিয়া, তা আর কাটেনি।

তিন নম্বরে নামা উসমান খাওয়াজার (২১) ক্যাচও নেন মায়াঙ্ক। এই ক্ষেত্রে বোলার ছিলেন রবীন্দ্র জাডেজা। অস্ট্রেলিয়ার চতুর্থ উইকেট পড়ে ৮৯ রানে। অসাধারণ স্লোয়ার বলে শন মার্শকে (১৯) এলবিডব্লিউ করেন বুমরা। লাঞ্চে ৩৩ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ছিল চার উইকেটে ৮৯ রান।

লাঞ্চের পরই ফের আঘাত হানলেন বুমরা। ট্র্যাভিস হেডকে  (২০) বোল্ড করলেন আর এক অসাধারণ ডেলিভারিতে। স্কোরবোর্ডে তখনও একশো ওঠেনি, অস্ট্রেলিয়া দাঁড়িয়ে ৯২ রানে। ১০২ রানে পড়ল আরও এক উইকেট। জাডেজার বলে অজিঙ্ক রাহানেক ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন মিচেল মার্শ (৯)। সপ্তম উইকেটে এরপর অধিনায়ক টিম পেন ও প্যাট কামিংস প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। দু’জনে মিলে যোগ করেন ৩৬ রান। চায়ের বিরতির আগে কামিংসকে (১৭) বোল্ড করেন মহম্মদ শামি। ১৩৮ রানে পড়ে সাত উইকেট। চায়ের বিরতিতে ৬৩ ওভারে সাত উইকেটে ১৪৫ তুলেছে অস্ট্রেলিয়া। 

চায়ের বিরতির ঠিক পরে বুমরা ফেরালেন অজি অধিনায়ক পেনকে (২২)। অস্ট্রেলিয়ার রান তখন ১৪৭। পরের দুই উইকেট পড়ল চার রানের মধ্যে। নেথান লিয়নকে এলবিডব্লিউ করলেন বুমরা। আর জশ হেজেলউড হলেন বোল্ড। কেউই কোনও রান করেননি। সাত রানে অপরাজিত থাকলেন মিচেল স্টার্ক। ১৫১ রানে শেষ হল অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস। রবিবার টেস্টের শেষ দিনে মেলবোর্নে বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে। মনে করা হচ্ছিল, ভারত তা মাথায় রেখে ফলো-অন করাবে অস্ট্রেলিয়াকে। কিন্তু, ফের ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন বিরাট কোহালি। 

(আইসিসি বিশ্বকাপ হোক বা আইপিএল ,টেস্ট ক্রিকেট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি। ক্রিকেট খেলার সব আপডেট আমাদের খেলা  বিভাগে।)

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন