ডুরান্ড কাপ ও কলকাতা লিগ এখন অতীত। বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপকেই পাখির চোখ করছেন সবুজ-মেরুনের স্পেনীয় ফুটবলার ফ্রান গঞ্জালেজ। এই কয়েকদিনেই বাগান সমর্থকদের নয়নের মণি হয়ে উঠেছেন তিনি। ভালবেসে ভক্তরা তাঁর নাম দিয়েছেন ‘দ্য বস’।

সনি নর্দের ৫০ নম্বর জার্সি উঠেছে গঞ্জালেজের গায়ে। বছর খানেক আগে ‘হাইতিয়ান তারকা’ যে ভাবে সতীর্থদের উদ্বুদ্ধ করতেন, মাঠে বল গড়ানোর আগে সাহস জোগাতেন, ফ্রান গঞ্জালেজও ঠিক সে ভাবেই গোটা দলকে মোটিভেট করেন। শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের প্রথম ম্যাচে ভিয়েতনামের ইয়ং এলিফ্যান্টস এফসি-র বিরুদ্ধে নামার আগেও ঠিক একই ভাবে দলকে তাতাচ্ছেন তিনি। এই অল্প দিনেই সবুজ-মেরুন তাঁর কাছে হয়ে উঠেছে যৌবনের তপোবন। তাই বাগানের মাঝমাঠের স্পেনীয় তারকা চট্টগ্রাম থেকে আনন্দবাজার ডিজিটালকে বললেন, “মোহনবাগানের জার্সি পরে মাঠে জীবন দিয়ে দিতে পারি।’’ তাঁর এই অনুভূতি সতীর্থদের মধ্যেও ছড়িয়ে দিতে চাইছেন গঞ্জালেজ।

যে কোনও টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচ সব সময়েই কঠিন। তার উপরে প্রতিপক্ষ সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানা নেই বাগান শিবিরের। অচেনা প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে নামার আগে ‘দ্য বস’ বলেন, ‘‘সত্যি কথা বলতে কী, প্রতিপক্ষ সম্পর্কে বিশেষ কিছুই আমাদের জানা নেই। ওদের কথা বেশি ভেবে নিজেদের পারফরম্যান্স আমরা খারাপ করতে চাই না। আমরা নিজেদের দিকেই নজর দিচ্ছি। এই টুর্নামেন্টটা জিততে হলে সেরাটা নিংড়ে দিতে হবে। বিদেশের মাঠে ভারত ও মোহনবাগানের সম্মান তুলে ধরার চেষ্টা করব আমরা।’’ 

আরও পড়ুন: ১৪ বছরের বান্ধবীকে বিয়ে করলেন নাদাল

মরশুমে এখনও পর্যন্ত কোনও ট্রফি ঢোকেনি গঙ্গাপাড়ের ক্লাব তাঁবুতে। চট্টগ্রাম থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে কলকাতা ফিরলে আইলিগের আগে আত্মবিশ্বাসে ফুটবে বাগান-শিবির। সমর্থকদের মুখেও খেলা করবে হাজার ওয়াটের আলো। সমর্থকদের নয়নের মণি গঞ্জালেজ বলছেন, ‘‘সমর্থকদের জন্যই এই টুর্নামেন্টটা আমাদের জেতা দরকার। প্রস্তুতি ভালই হয়েছে। ঠিক পথেই আমরা এগোচ্ছি। তবে এটাও ওদের মনে রাখতে হবে, ক্লাব এ বার নতুন দল গড়েছে। একটা নির্দিষ্ট স্টাইলে খেলার চেষ্টা করছি আমরা। সমর্থকরা যেন আমাদের পাশে থাকেন।’’

আজ সন্ধেয় ফ্রান গঞ্জালেজ, হোসেবা বেইতিয়াদের জন্য কি গলা ফাটাবে চট্টগ্রামের গ্যালারি? ঘরের মাঠে বা যুবভারতীতে খেলা থাকলে সমর্থকরাই বাগানের দ্বাদশ ব্যক্তি। গ্যালারি থেকে ভক্তদের শব্দব্রহ্ম ফুটবলারদের রক্তের গতি বাড়িয়ে দেয়। মাঠে উজ্জীবিত পারফরম্যান্স করতে তাতায়। চট্টগ্রামে প্রথম ম্যাচে সেই সমর্থন পাবে না বাগান-শিবির। গঞ্জালেজ বলছেন, ‘‘এটাই তো ফুটবল। ঘরের মাঠে খেলতে নামলে সমর্থকরাই আমাদের টুয়েলভথ ম্যান। বাইরে খেলা হলে ওদের সমর্থন পাব না, এটা জেনেই আমরা খেলতে নামছি। সমর্থকরা শারীরিক দিক থেকে হয়তো স্টেডিয়ামে উপস্থিত থাকতে পারবেন না, কিন্তু আমাদের হৃদয়ে ওরা সবসময়েই রয়েছে, থাকবেও। আমাদের নিয়েই ওরা স্বপ্ন দেখে। দিনের শেষে সমর্থকদের খুশি করাই আমাদের আসল উদ্দেশ্য।’’

আরও পড়ুন: গৃহযুদ্ধে মৃত্যু বাবার, সুনীলদের বেগ দিতে তৈরি শরণার্থীর জীবন কাটানো আফগান গোলকিপার

সমর্থকদের খুশি করা এবং দুটো টুর্নামেন্ট না জেতার ক্ষতে প্রলেপ দেওয়ার লক্ষ্য নিয়েই প্রথম ম্যাচে নামছে গঞ্জালেজের মোহনবাগান। থুড়ি, শেখ কামাল ক্লাব কাপ টুর্নামেন্টে।