• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘পর পর বাউন্ডারি মেরেও আমায় হতোদ্যম না হওয়ার পরামর্শ দেন দ্রাবিড়’

Dravid
ব্যাটসম্যান হিসেবে তো বটেই, মানুষ হিসেবেও দ্রাবিড়কে গ্রেট মানছেন টিনো বেস্ট। —ফাইল চিত্র।

কিছু ক্ষণ আগে ম্যাচে টানা তিনটি বাউন্ডারি মেরেছেন। খেলার শেষে সেই বোলারকেই হতাশ না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। রাহুল দ্রাবিড় সম্পর্কে এমনই এক ঘটনার কথা জানালেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন পেসার টিনো বেস্ট।

২০০৪ সালে এক দিনের ক্রিকেটে অভিষেক ঘটেছিল ক্যারিবিয়ান জোরেবোলারের। পরের বছর শ্রীলঙ্কায় এক ত্রিদেশীয় সিরিজে দ্রাবিড়কে প্রথম বার বল করেছিলেন টিনো বেস্ট। সেই অভিজ্ঞতার কথা এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন তিনি। বেস্টের কথায়, “২০০৫ সালে ইন্ডিয়ান অয়েল কাপে প্রথম বার ভারতের বিরুদ্ধে খেলেছিলাম। তখনই দ্রাবিড়কে বল করেছিলাম। আর সেটা ছিল একটা অভিজ্ঞতা। টানা তিন বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়েছিল ও। মনে আছে খেলার পর আমাদের মধ্যে কথাও হয়েছিল। দ্রাবিড় বলেছিল, ‘ইয়ং ম্যান, তোমার এনার্জি আমার ভাল লেগেছে। এই উদ্যম নিয়েই বল করো। বাউন্ডারি খেয়েছে বলে হতাশ হয়ে যেও না।’ আমার ব্যাপারটা দারুণ লেগেছিল। খুব নম্র মনে হয়েছিল দ্রাবিড়কে।”

আরও খবর: অস্ট্রেলিয়ায় ভারতীয় ক্রিকেটারদের ১৪ দিনের কোয়রান্টিন কাজে দেবে, দাবি ভুবনেশ্বরের​

আরও খবর: বিশেষ পাক ফ্যানের চিঠি কাম্বলিকে পৌঁছে দিতেন রশিদ লতিফ!​

শুধু দ্রাবিড়ের জন্যই না, সামগ্রিক ভাবেই ভারতীয় ক্রিকেটারদের সম্পর্কে বেস্টের অভিজ্ঞতা ভাল। তাঁকে এক বার ব্যাট উপহার দিয়েছিলেন যুবরাজ সিংহ। যা মনে ধরেছিল বেস্টের। দ্রাবিড় ছাড়া সচিন তেন্ডুলকর, বীরেন্দ্র সহবাগ, ভিভিএস লক্ষ্মণ, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কেও বল করেছেন তিনি। ক্যারিবিয়ান পেসারের মনে ধরেছিল ভারতীয় ক্রিকেটারদের নম্রতা।

টিনো বেস্টের কথায়, “আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি, ভারতীয় ক্রিকেটাররা সবাই ভাল। রাহুল দ্রাবিড় তো বটেই, বাকিরাও নম্র, মার্জিত। কোটি কোটি মানুষের প্রত্যাশার চাপ ওদের উপরে, এমন ধরনের হাবভাব কখনই করেনি। একেবারে বিনম্র ওরা। আর সেই কারণেই ওদের শ্রদ্ধা করি। কখনও ওদের মধ্যে খারাপ কিছু দেখিনি। ওরা বরাবর সম্মান জানিয়েছে। ক্রিকেটকে ভালবেসেছে।”

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন