×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

ফের শতরান হাতছাড়া শুভমনের, তবে এবার আর আক্ষেপ নেই বাবা লখবিন্দরের

সব্যসাচী বাগচী
কলকাতা ২০ জানুয়ারি ২০২১ ১২:১০
হাফ সেঞ্চুরি করে শুভমন গিল।

হাফ সেঞ্চুরি করে শুভমন গিল।
ছবি: টুইটার থেকে

সুনীল গাওস্কর, সচিন তেন্ডুলকর, ভি ভি এস লক্ষ্মণ, বীরেন্দ্র সহবাগ-সহ আরও অনেকে ২১ বছরের ছেলেটাকে নিয়ে একটাই কথা বলছেন। ‘নেক্সট বিগ থিং ইন ইন্ডিয়ান ক্রিকেট’। ওঁর দৃষ্টিনন্দন ব্যাটিংয়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সবাই।,যা ব্রিসবেন টেস্টের পর আরও বেড়েছে। ভবিষ্যতেও বাড়বে।

গত ৮ জানুয়ারি গিল পরিবারের কাছে সবচেয়ে সুখের দিন হতেই পারত। সিডনি টেস্টে একমাত্র ছেলে শুভমন প্রথম অর্ধ-শতরান করলেও ৫১-তে থমকে যান। তাই ওঁর বাবা-মা লখবিন্দর সিংহ ও কীর্ত কৌর সেদিন খুশি হলেও উচ্ছ্বসিত ছিলেন না। তবে এবার ওঁরা গর্বিত। ছেলে শতরান ফেলে এলেও ওঁরা গর্বিত। কারণ, ওঁদের ছেলের জন্যই তো ব্রিসবেন টেস্টে জয়ের ভিত তৈরি হয়েছিল।

৩২৮ রান তাড়া করতে গিয়ে শুরুতেই ফিরে যান রোহিত শর্মা। তবে দমে যাননি তরুণ পঞ্জাব তনয়। চেতেশ্বর পূজারা বিপক্ষ পেসারদের গোলাগুলি হজম করে একদিক আগলে রাখেন। অন্য প্রান্ত থেকে কাউন্টার অ্যাটাক শুরু করে দেন শুভমন। ধীরে ধীরে গড়তে শুরু করে ৩২ বছর পর ঐতিহাসিক ব্রিসবেন টেস্ট ও সিরিজ জয়ের ইমারত। তাই ১৪৬বলে ৯১ রানে থামলেও লখবিন্দর সিংহ গিল খুশি। মোহালি থেকে আনন্দবাজার ডিজিটালকে ফোনে বললেন, ‘‘সিডনি টেস্টে শুভি প্রথমবার অর্ধ শতরান করলেও আমরা পুরোপুরি খুশি ছিলাম না। ও কত বড় মাপের ব্যাটসম্যান সেটা জানতাম। দলের স্বার্থে ওর আরও লম্বা ইনিংস খেলা উচিত ছিল। তবে এবার শতরান না করলেও বিন্দুমাত্র আফসোস নেই। দ্বিতীয় ইনিংসে এমন দাপুটে ব্যাটিং করতে হলে কলজে লাগে। সেটা শুভি দেখিয়ে দিল।’’

Advertisement

মেলবোর্ন বক্সিং-ডে টেস্টে অভিষেক ঘটিয়েই নজর কেড়েছিলেন, যা সিডনি থেকে ব্রিসবেন পর্যন্ত বজায় রয়েছে। মাত্র ৩টে টেস্টে ৫১.৮০ গড় নিয়ে ইতিমধ্যেই ২৫৯ রান করে ফেলেছেন। সঙ্গে রয়েছে ২টি অর্ধ শতরান। এই রানগুলোয় একাধিক দৃষ্টিনন্দন ব্যাকফুট পাঞ্চ ও ফরোয়ার্ড ডিফেন্সের মিশেল রয়েছে। স্বভাবতই ছেলের এমন ব্যাটিংয়ে আপ্লুত লখবিন্দর। ওঁর প্রতিক্রিয়া, ‘‘সবকটা প্রস্তুতি ম্যাচে ও রান পেয়েছিল। তাই জানতাম টেস্ট দলে সুযোগ পেলেই রান করবে। সত্যি বলতে ওর ব্যাটিং দেখা চোখের শান্তি। বাবা হিসেবে নয়, কথাটা একজন দর্শক হিসেবে বলছি।’’

নিজে বড় ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন। কিন্তু সংসারের চাপে সেই স্বপ্ন পূর্ণ হয়নি। তাই ছেলেকে নিয়েই এখন ওঁদের যত স্বপ্ন। গিল পরিবারের সেই স্বপ্ন দেখা অবশ্য স্বাভাবিক। কারণ, প্রিয় শুভি যে ‘নেক্সট বিগ থিং ইন ইন্ডিয়ান ক্রিকেট’।

(প্রতিবেদন প্রকাশের সময় '২১১ বলে ৯১ রান করেছিলেন গিল' লেখা হয়েছিল। অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী)

Advertisement