নারদ কাণ্ডে এ বার রাজ্যের নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ ওরফে ববি হাকিমকে জিজ্ঞাসাবাদ করল সিবিআই। ম্যাথুর কাছ থেকে টাকা নেওয়ার বিষয়টি মন্ত্রী এ দিন স্বীকার করেছেন বলে দাবি সিবিআইয়ের তদন্তকারীদের।

নারদ কাণ্ডে অভিযুক্ত ছিলেন ১৩ জন। তাঁদের মধ্যে তৃণমূল সাংসদ সুলতান আহমেদ প্রয়াত হয়েছেন। বাকি ১২ জন অভিযুক্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ১১ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করল সিবিআই। বাকি রয়েছেন শুধু পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। গত শুক্রবার তাঁকে ডেকে পাঠানো হলেও ব্যস্ততার কারণ দেখিয়ে তিনি আসেনননি। এই সপ্তাহে আবার তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার নিজাম প্যালেসে প্রায় সাত ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় ববিকে। সিবিআই সূত্রের খবর, ২০১৪ সালে নারদ স্টিং অপারেশনে মন্ত্রীর চেতলার বাড়িতে গিয়ে পাঁচ লক্ষ টাকা দিয়েছিলেন ছদ্মবেশী সাংবাদিক ম্যাথু স্যামুয়েল। স্টিং অপারেশনে সম্পাদিত ফুটেজ অনুযায়ী নিজের হাতে টাকা নেননি ববি। তাঁর অফিসে ওই টাকা জমা দেওয়ার জন্য ম্যাথুকে বলেছিলেন। এমনকী সেই ফুটেজ অনুযায়ী, সাধারণত এত কম টাকা তিনি নেন-না বলেও সে দিন ম্যাথুকে ববি বলেন। চার-পাঁচ লক্ষ টাকা তাঁর অনুগতরাই নিয়ে থাকেন বলে
দাবি করেন।

অসম্পাদিত ফুটেজে মন্ত্রীর এক ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিকে ম্যাথুর কাছ থেকে টাকা নিতে দেখা গিয়েছে। ঘনিষ্ঠ ওই ব্যক্তি চেতলা এলাকার একটি ক্লাবের এক কর্মকর্তা। দেখা গিয়েছে, ওই টাকা পাওয়ার পরে ম্যাথুকে নগরোন্নয়ন দফতরের বিভিন্ন ঠিকাদারি কাজ পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন মন্ত্রী।