উপনির্বাচনে প্রার্থী করে মদন মিত্রকে দলের মূলস্রোতে ফেরালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের প্রাক্তন পরিবহণমন্ত্রী ভোট লড়বেন ভাটপাড়া বিধানসভা কেন্দ্রে। একই সঙ্গে ইসলামপুর বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী করা হয়েছে আর এক প্রাক্তন মন্ত্রী আবদুল করিম চৌধুরীকে। 

দলত্যাগী তৃণমূল বিধায়ক অর্জুন সিংহ লোকসভা ভোটে বিজেপির প্রার্থী হওয়ায় তাঁর ভাটপাড়া কেন্দ্রে উপনির্বান আগামী ১৯ মে। উপনির্বাচনে অর্জুন প্রার্থী হচ্ছেন না ঠিকই তবে তাঁর ঘাঁটিতে ‘শক্তপোক্ত’ মদনকেই চ্যালেঞ্জার হিসেবে রাখলেন তৃণমূল নেত্রী। 

অর্জুনের ‘গড়ে’ এই ‘যুদ্ধ’ সম্পর্কে মদন বলেন, ‘‘মহাভারতে একটাই চরিত্র, কৃষ্ণ। তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই আমার সামনে শুধু জয়।’’ পাল্টা জবাবে অর্জুন অবশ্য দাবি করেন, ‘‘ওঁর জামানত বাজেয়াপ্ত করব।’’ রাজনৈতিক মহলের খবর, মদনের বিরুদ্ধে বিজেপির প্রার্থী হতে পারেন অর্জুনের পরিবারেরই কেউ।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

২০১১ সালে কামারহাটি থেকে নির্বাচিত হয়ে মন্ত্রী হয়েছিলেন মদন। পরে সারদা মামলায় গ্রেফতার হয়ে গ্রেফতার হয়ে মন্ত্রিত্ব ছেড়েছিলেন তিনি। ২০১৬-য় কামারহাটি থেকে লড়ে হেরেও যান। আপাতত জামিনে মুক্ত মদন বিধায়ক, মন্ত্রী বা দলীয় পদে না-থাকলেও দলের কাজে ছিলেন। নোটবন্দির মতো বিষয়ে দলের কর্মসূচিতে ছিলেন তিনি। 

কংগ্রেস বিধায়ক কানাইয়ালাল আগরওয়াল লোকসভা ভোটে তৃণমূলের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। তাঁর ইসলামপুর কেন্দ্রের উপনির্বাচনে করিম চৌধুরী শাসক দলের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। চোপড়া থেকে জিতে মন্ত্রী হয়েছিলেন করিম চৌধুরী। মালদহের হবিবপুরের সিপিএম বিধায়ক খগেন মুর্মু এ বার বিজেপির লোকসভা ভোটের প্রার্থী। ওই কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী অমল কিস্কু। ইসলামপুরে কংগ্রেস প্রার্থী আলহাজ মুজফফার হুসেন, হবিবপুরে রেজিনা মুর্মু। ভাটপাড়ায় কংগ্রেস প্রার্থী করেছে খাজা আহমেদ হুসেনকে।  

দার্জিলিং বিধানসভা আসনে জিটিএ প্রধান বিনয় তামাংকে সমর্থন করবে তৃণমূল।