• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

হিজাব পরে হনুমান চালিসা পাঠ! প্রাণনাশের হুমকিতে বাড়িছাড়া হাওড়ার ইসরত জহান

Israt jahan
মঙ্গলবার ডবসন রোডে হনুমান চালিসা পাঠের আসরে ইসরত জহান। ছবি: সংগৃহীত।

ফের বিতর্কে ইসরত জহান। এ বার হনুমান চালিসা পাঠ করার জন্য তাঁকে প্রাণে মারার হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ তুললেন তিনি। হামলার আশঙ্কায় ইসরত আপাতত বাড়িছাড়া। এমনটা জানিয়ে তিনি হাওড়ার গোলাবাড়ি থানায় অভিযোগও দায়ের করেছেন।

গোটা দেশে তিন তালাক বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম প্রধান মুখ হাওড়ার ইসরত জহান। গোলাবাড়ি থানা এলাকার নন্দ ঘোষ রোডে সন্তানদের নিয়ে একটি বাড়িতে ভাড়া থাকেন তিনি। গোলাবাড়ি থানায় করা অভিযোগে তিনি জানিয়েছেন, গত মঙ্গলবার বিজেপির একটি সভায় তিনি হিজাব পরে হনুমান চালিসা পাঠ করেন। এর পর বুধবার সকালে তাঁর বাড়িতে চড়াও হন প্রচুর মানুষ। সেই দলে তাঁর দেওর মুস্তাফা আনসারি এবং ভাড়াবাড়ির মালিক মুনাজির হোসেন ছিলেন। তাঁরা সকলে মিলে ইসরতকে গালিগালাজ করেন বলে অভিযোগ। তাঁকে ভাড়াবাড়ি ছেড়ে চলে যেতে বলার পাশাপাশি প্রাণে মারার হুমকিও দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন ইসরত।

বৃহস্পতিবার ইসরত জানান, বুধবার সকালে তিনি ছেলেকে স্কুল থেকে নিয়ে ফিরছিলেন। বাড়িতে ঢোকার মুখে তিনি দেখেন, কয়েকশো মানুষ হাজির হয়েছে সেখানে। ইসরতের কথায়, ‘‘বাড়ির সামনে দেখি কয়েকশো মানুষের ভিড়। তাঁদের মধ্যে কয়েকজন আমার দিকে আঙুল তুলে বলে, এর নাম ইসরত জহান।” এর পরেই তাঁর দেওর এবং ফ্ল্যাটের মালিক ইসরতের উদ্দেশে গালিগালাজ শুরু করেন বলে অভিযোগ। ইসরত বলেন, ‘‘ওঁরা আমাকে হুমকি দিতে থাকেন। আমার দিকে আঙুল তুলে ওঁরা জনতার সামনেই বলেন, আমি হিজাব পড়ে হনুমান চালিসা পাঠ করেছি। এর পরেই সমবেত জনতা আমাকে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে বলে। আমাকে প্রাণে মারার হুমকি দেয়।’’ ইসরত জানান, সন্তান এবং নিজের নিরাপত্তার কথা ভেবে তিনি আপাতত এক আত্মীয়ের বাড়িতে আত্মগোপণ করে রয়েছেন।

পুলিশ সূত্রে খবর, তাঁরা ইসরতের অভিযোগ পেয়েছেন। এ নিয়ে তদন্তও শুরু হয়েছে। হাওড়া পুলিশ কমিশনারেট সূত্রে খবর, গত মঙ্গলবার ডবসন রোডে বিজেপি হনুমান চালিসা পাঠের আয়োজন করে। সেই অনুষ্ঠান ঘিরে প্রথম থেকেই উত্তেজনা ছিল। পুলিশের দাবি, ওই অনুষ্ঠানের কারণে রাস্তায় যাতে জ্যাম না হয়, তাই জায়গাটি গার্ড রেল দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়। কিন্তু আয়োজকরা তার বিরোধিতা করেন। সেই সময় ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক দফা পুলিশের সঙ্গে আয়োজকদের ধস্তাধস্তি হয়। সেই ঘটনা যদিও বেশি দূর এগোয়নি।

আরও পড়ুন: রোজভ্যালি-কাণ্ডে ইডি দফতরে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, চলছে জিজ্ঞাসাবাদ

তবে ইসরতকে নিয়ে বিতর্ক এর আগেও হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টে তিন তালাক মামলার পাঁচ আবেদনকারীর মধ্যে অন্যতম তিনি। ২০১৭-র অগস্ট মাসে তিনি গোলাবাড়ি থানায় অভিযোগ করেছিলেন, তাঁর সন্তানরা নিখোঁজ হয়ে গিয়েছে। পরবর্তীতে অবশ্য তাঁর প্রাক্তন স্বামীর সঙ্গে নিরাপদেই ফিরে আসে দুই ছেলেমেয়ে। তিন তালাক মামলার আবেদনকারী ইসরত সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। ওই অনুষ্ঠানে ইসরত হিজাব পরে হনুমান চালিসা পাঠ-আবৃত্তি করেন। তাঁর বক্তব্য, ‘‘আমাদের দেশ ধর্ম নিরপেক্ষ। আমি কোন ধর্মের বই পাঠ করব, তা নিয়ে কেউ ফতোয়া দিতে পারেন না। আমাকে বারণও করতে পারে না।”

স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের অভিযোগ, ইসরতের পারিবারিক গন্ডগোলকে বিজেপি পরিকল্পিত ভাবে রাজনৈতিক রং লাগিয়ে ফায়দা তোলার চেষ্টা করছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন