• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘চার্টার্ড’ উড়ানে সায় দিল বাংলা

chartered flight
প্রতীকী ছবি।

অবশেষে রাজি হল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। শুক্রবার বিকেলে নবান্ন থেকে এক নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, এ বার বিদেশে আটকে পড়া এ রাজ্যের বাসিন্দারা কলকাতায় সরাসরি ফিরতে চাইলে পারবেন। তবে, বন্দে ভারত উড়ানে নয়। বিমান ভাড়া করে যদি কেউ আসতে চান তা হলে রাজ্যের আপত্তি নেই। চারটি শর্তে এই সবুজ সঙ্কেত দেওয়া হয়েছে। 

রাজ্যের শর্ত - এক, উড়ান ধরার ৯৬ ঘণ্টা আগে কোভিড পরীক্ষায় রিপোর্ট নেগেটিভ আসতে হবে। দুই, যাত্রীর নিজের তথ্য দেওয়া ফর্ম ও নেগেটিভ রিপোর্ট উড়ান ছাড়ার ২৪ ঘণ্টা আগে রাজ্যের কাছে পাঠাতে হবে। তিন, কলকাতায় নামার পরে আর সরকারি নিভৃতবাস বা হোটেলের পরিবর্তে ১৪ দিনের জন্য বাড়িতে গিয়ে নিভৃতবাসে থাকতে হবে। চার, কলকাতায় নামার পরে তাপমাত্রা পরীক্ষার সময়ে সন্দেহ হলে সংশ্লিষ্ট যাত্রীকে পাঠানো হবে সরকারি নিভৃতাবাসে। কোনও ভাবে এই নিয়মের লঙ্ঘন হলে তার দায় নিতে হবে বিমান ভাড়া দেওয়া সংস্থাকে। সে ক্ষেত্রে সেই সংস্থার বিরুদ্ধে রাজ্য কড়া ব্যবস্থা নেবে।

শুক্রবার কলকাতা বিমানবন্দরের অধিকর্তা কৌশিক ভট্টাচার্য বলেন, “আমার কাছে এই নির্দেশিকা এসে পৌঁছেছে। বলা হয়েছে, ১০ অগস্ট থেকে এই ভাড়া করা উড়ান আসতে পারবে। তবে এখনও পর্যন্ত কোনও সংস্থা এরকম উড়ান আনার কথা জানায়নি।”

সম্প্রতি, ২ অগস্ট কেন্দ্রীয় সরকারও নতুন নির্দেশিকায় বলেছে, এ বার ভারতে আসতে গেলে উড়ান ধরার ৯৬ ঘণ্টা আগে কোভিড পরীক্ষা করাতে হবে। পরীক্ষায় নেগেটিভ রিপোর্ট এলে তবেই যাত্রী আসতে পারবেন। ভারতে নামার পরে বাড়িতে গিয়ে ১৪ দিনের জন্য নিভৃতবাসে থাকলেই চলবে। এমনকি, বিদেশ থেকে দিল্লি বা মুম্বই এসে সংযোগকারী অন্য শহরের উড়ান ধরতে গেলেও কোনও বাধা থাকবে না। কেন্দ্রের এই নিয়ম মূলত বন্দে ভারত উড়ানের কথা মাথায় রেখেই করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকার অবশ্য বন্দে ভারত উড়ানের কোনও উল্লেখ করেনি। রাজ্যের নির্দেশিকা অনুযায়ী, বন্দে ভারত উড়ান কলকাতায় আসার ক্ষেত্রে যে নিষেধাজ্ঞা ছিল তাই থাকবে।

 আরও পড়ুন: এক দিনে ৫২ জন মারা গেলেও রাজ্যে কমল সংক্রমণের হার

 আরও পড়ুন: সোমেন-স্মরণে আমন্ত্রণ বিজেপি-সহ সব দলকেই

এখনও সাধারণ আন্তর্জাতিক যাত্রী উড়ান চালু হয়নি। ভারত থেকে সেই উড়ান ৩১ অগস্ট পর্যন্ত বন্ধ রাখা হয়েছে। লকডাউনের পর মে মাস থেকে কেন্দ্র এই বন্দে ভারত প্রকল্প চালু করে বিদেশে আটকে থাকা ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনছিল। কলকাতাতেও ওই উড়ান আসতে শুরু করে। তখনকার নিয়ম ছিল, বন্দে ভারত উড়ানে এলে বাধ্যতামূলক ভাবে যাত্রীকে সাত দিনের জন্য হোটেলে নিভৃতবাসে থাকতে হবে। দুটি ক্ষেত্রে কলকাতায় নেমে যাত্রীরা সেই নিয়ম না মানায় জুলাই মাসের গোড়া থেকে রাজ্য বন্দে ভারত উড়ান আসা বন্ধ করে দেয়। তারপর থেকে রাজ্যের সঙ্গে কেন্দ্রের এ নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়। কিন্তু, সমাধান সূত্র বেরোয়নি।

এর ফলে বহু মানুষ বিদেশে আটকে পড়েন। কলকাতায় ফেরার ইচ্ছা থাকলেও তারা পারেন না। মাঝে বেশ কিছু ক্ষেত্রে বিমান ভাড়া করে কলকাতায় আসার কথা জানিয়েছিলেন বিদেশে আটকে থাকা বাঙালিরা। তাঁরা সেখানে একত্রিত হয়ে বিমান ভাড়া করে আসতে চেয়েছিলেন। কিন্তু, রাজ্য অনুমতি দেয়নি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন