• বরুণ দে
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মমতার পরশ এ বার ‘রুগণ্‌’ নারায়ণগড়ে

এক সময় খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর তালুক ছিল নারায়ণগড়। তবু বাম আমলে সূর্যকান্ত মিশ্রের বিধানসভা এলাকার স্বাস্থ্য ফেরেনি। বিস্তীর্ণ এলাকার একমাত্র ভরসা ছিল বেলদা গ্রামীণ হাসপাতাল। সেই হাসপাতালই এ বার সুপার স্পেশ্যালিটি হতে চলেছে। সব ঠিক থাকলে আজ, সোমবার খড়্গপুরে মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক সভাতেই নারায়ণগড়ের সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের শিলান্যাস হবে।

যদিও যে ৬টি সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতাল চালু হয়েছে, সেখানে শুধু আউটডোর পরিষেবা মিলছে। আদতে নারায়ণগড়ের বাসিন্দা, সিপিএমের রাজ্য কমিটির সদস্য তাপস সিংহের কটাক্ষ, ‘‘ঝাঁ চকচকে ভবন বানালেই যে হাসপাতাল হয় না, এই ফাঁকিটা মানুষ বুঝতে পারছেন।”

গত বিধানসভা ভোটে দলের প্রার্থী প্রদ্যোত ঘোষকে জেতানোর আর্জি জানিয়ে মমতা বলেছিলেন, ‘সূর্যবাবুকে হারালে প্রথম সভা করব নারায়ণগড়ে।’ সে কথা রেখে গত জুনে সভা করে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তখন উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মমতা। এ বার সে কথা রাখার পালা।

স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে বরাবরই ক্ষোভ রয়েছে নারায়ণগড়বাসীর। গত জুনে রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা বিশ্বরঞ্জন শতপথী নারায়ণগড়ের ব্লক সদর বেলদায় গ্রামীণ হাসপাতাল পরিদর্শন করেছেন। প্রশাসনিক বৈঠকও হয়েছে। সুপার স্পেশ্যালিটিতে উন্নীত হলে গ্রামীণ হাসপাতালের ৬০ শয্যা বেড়ে হবে ৩০০। অন্য পরিষেবার মানও বাড়বে বলে আশা।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন